জ্যান্ত কবর দেয়া হল ১৪ টি বাচ্চা সহ মা কুকুরকে!

হাতির ঝিল মহানগর প্রকল্পের 8 নম্বর রোডের পাশে গত বুধবার বাগিচারটেক ৩৫ / বি জায়গাতে একটা মা কুকুর সহ চৌদ্দটা বাচ্চাকে পিটিয়ে আহত করে জ্যান্ত অবস্থায় মাটি চাপা দেয়ার ঘটনা ঘটে। উক্ত ঘটনায় ১৯২০ সালের প্রাণী নিষ্ঠুরতা আইন আইন এর ৩ ও ৭ ধারা অনুযায়ী মামলা করা হয়েছে। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ঢাকার দুটি প্রাণী কল্যাণ সংস্থা কেয়ার ফর পস(সিএফপি) এবং পিপল ফর অ্যানিম্যাল ওয়েল ফেয়ার ফাউন্ডেশনের (প’ ফাউন্ডেশন) এর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা পুলিশ এবং ভলান্টিয়ার শাহ ঘটনাস্থলে যায়। তাদের সহায়তা করেন রামপুরা থানার ওসি প্রলয় কুমার।

কেয়ার ফর পস এর কর্মকর্তা সৌরভ শামীম, জাহিদ হোসেন এবং প’ ফাউন্ডেশন এর রাকিবুল হক এমিলি সহ অন‍্যরা মাটি খুড়ে মা এবং বস্তাবন্দি অবস্থায় চৌদ্দটি বাচ্চাকে মৃত অবস্থায় মাটি খুঁড়ে বের করে। অনুসন্ধানে উঠে আসা ঘটনার সাথে জড়িত ছিলেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা যার ইন্ধনে ওই এলাকার সিকিউরিটি গার্ড সিদ্দিক ও তার সহযোগীরা গত বুধবার মা কুকুরটিকে তার বাচচাসহ পিটিয়ে রক্তাক্ত করে জীবিত থাকা অবস্থায় বাচ্চাগুলোকে বস্তাবন্দি করে মা সহ মাটিচাপা দিয়ে দেয়া হয়। ঘটনার সাথে জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে প্রাণী কল্যাণ সংগঠনের কর্মীরা বাদী হয়ে রামপুরা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। আগামীকাল মা কুকুর এবং চৌদ্দটি ছানার মৃতদেহ গুলোকে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকার ফুলবাড়ীয়ার সরকারি পশু হাসপাতালে পাঠানো হবে। এটিই বাংলাদেশে প্রথমবার কোন প্রাণীর মৃত্যুর জন্য ময়না তদন্ত করা হবে।

১৯২০ সালের প্রাণী নিষ্ঠুরতা আইন আইন এর ৩ ও ৭ ধারা অনুযায়ী কোনো ধরনের পশু পাখিকে বিনা কারণে হত্যা করা বা নির্যাতন করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হবে। ঢাকার অন্যতম প্রাণী কল্যাণ সংস্থার ‘care for paw’ চেয়ারম্যান সৌরভ শামীম বলেন “যারা একটি নিরীহ প্রাণীকে এভাবে নির্দয়ভাবে হত্যা করতে পারে তারা সমাজের জন্য হুমকিস্বরূপ। তারা মানুষ হত্যা করতেও পিছপা হবে না। এ ধরনের মানুষদের আইনের আওতায় এনে একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করা উচিত।”

এলাকাবাসীদের সাথে কথা বলে জানা যায় এটি প্রথম না, এর আগেও বেশ কয়েকটা কুকুরকে এভাবে হত্যা করে অথবা আধমরা অবস্থায় মাটি চাপা দিয়ে মেরে ফেলা হয়। উল্লেখ্য ২০১২ সালে হাইকোর্ট একটি রায়ের মাধ্যমে ঢাকা শহরে কুকুর নিধন সম্পূর্ণভাবে অবৈধ ঘোষণা করেছে। কেয়ার ফর পস বাংলাদেশের একটি অন্যতম প্রাণী কল্যাণমূলক সংস্থা যারা ২০১২ সাল থেকে রাস্তার অসহায় কুকুর, বিড়ালদের বিনা খরচে চিকিৎসার ব্যবস্থা করে থাকে।