ক্লাসিক্যাল ফেস্ট না হলেও শুরু হচ্ছে ‘ঢাকা ইন্টারনেশনাল ফোকফেস্ট ২০১৭’

ক্লাসিক্যাল ফেস্ট না হলেও আগামী ০৯ থেকে ১১ নভেম্বর বাংলাদেশ আর্মি স্টেডিয়ামে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬.০০টা থেকে রাত ১.৩০ পর্যন্ত আয়োজন করতে যাচ্ছে ৩ দিন ব্যাপী ‘আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব, ঢাকা ইন্টারনেশনাল ফোকফেস্ট ২০১৭’।

আমাদের গ্রামবাংলার মানুষের জীবনের দু:খ-বেদনা-আনন্দ-বিরহ-প্রেম-অভিমান-বন্দনা, সব মানবিক অনুভূতিকে গানের সুরে ও কথায় প্রকাশ করে আমাদের লোকসংগীত। এই সংগীতই হচ্ছে যেকোনো দেশের সংস্কৃতির মূল মন্ত্র, যা কিনা ছড়িয়ে থাকে আমাদের শেকড়ের গভীরে। যার আবেদন কখনোই হারাবার নয়।  বাঙলার শেকড়ে ছড়িয়ে থাকা এই গানকে বিশ্বের দরবারে পরিচিত করতেই তৃতীয় পর্বের আয়োজন, ঢাকা ইন্টারনেশনাল ফোকফেস্ট, আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব ২০১৭।

আজ আমাদের এই উৎসব শুধু দেশে নয়, দেশের বাইরেও সমানভাবে জনপ্রিয়। বাংলার এই জনপ্রিয় লোকসংগীত উৎসবের ডাক উঠেছে পশ্চিমা দেশ গুলোতেও। এ বছর বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ইরান, ব্রাজিল, মালী, অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স ও জাপান এর ১৪০ জন শিল্পী এ উৎসবে সংগীত পরিবেশন করবেন। আজ রোববার সকালে রাজধানীর একটি হোটেলে আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়। উৎসবটির আয়োজন করেছে সান কমিউনিকেশনস।

লোকসংগীতের এই মহোৎসবে এবারের উল্লেখযোগ্য শিল্পীরা হলেন বাংলাদেশের শাহজাহান মুন্সি, আরিফ দেওয়ান, ফকির শাহাবুদ্দিন, শাহনাজ বেলী, শাহ আলম সরকার ও আলেয়া বেগম, বাউলা, বাউলিয়ানা। ভারত থেকে পাপন, নুরান সিস্টার্স, বাসুদেব দাস বাউল। মালী’র বিশ্বখ্যাত গ্র্যামি বিজয়ী তিনারিওয়েন ব্যান্ড। পাকিস্তান থেকে মিকাল হাসান ব্যান্ড। নেপাল থেকে কুটুম্বা। তিব্বতের ফোক শিল্পী তেনজিন চো’য়েগাল। ইরান থেকে রাস্তাক। ব্রাজিল থেকে মোরিসিও টিযুমবাসহ আরও অনেকে পরিবেশন করবেন শেকড় সন্ধানী গান।