গাছ কাটায় প্রকৌশলীকে বরখাস্ত

নাটোর উত্তরা গণভবনের শতবর্ষী তাজা গাছ কাটার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গণপূর্ত বিভাগের তিন প্রকৌশলীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব শহীদ উল্যা খন্দকার স্বাক্ষরিত এক আদেশে তাদের বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়।

এ তিন প্রকৌশলী হলেন— নির্বাহী প্রকৌশলী মশিউর রহমান আকন্দ, উপবিভাগীয় প্রকৌশলী জিয়াউর রহমান এবং উপসহকারী প্রকৌশলী কামরুজ্জামান। অন্যদিকে একই দিনে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের উপসচিব সুরাইয়া বেগম স্বাক্ষরিত একটি চিঠিতে গাছ কাটা তদন্ত কমিটির সুপারিশ অনুসারে ঠিকাদার সোহেল ফয়সালের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করতে নাটোরের জেলা প্রশাসককে নির্দেশ দেয়া হয়ছে। জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুন এসব তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, উত্তরা গণভবনে ঝড়ে পড়া এবং মরা তিনটি গাছ এবং কিছু ডালপালা কাটার টেন্ডার দেয় গণপূর্ত বিভাগ। মাত্র ১৮ হাজার ৪০০ টাকায় কাজ পান স্থানীয় যুবলীগ কর্মী সোহেল ফয়সাল। কিন্তু তিনি ১৭টি তরতাজা গাছ এবং ৪৮টি গাছের বড় বড় ডালপালা কেটে নিয়ে যান।

১৭ অক্টোবর এ নিয়ে গণমাধ্যমে খবর বেরোলে উত্তরা গণভবন ব্যবস্থাপনা কমিটি পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে। তদন্ত প্রতিবেদনে গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মশিউর রহমান আকন্দ, ঠিকাদার সোহেল ফয়সাল ও গণভবনের তত্ত্বাবধায়ক আব্দুস সবুর তালুকদারকে প্রধান অভিযুক্ত করে মোট ছয়জনকে অভিযুক্ত করা হয়। গণপূর্ত বিভাগের এক সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটিও প্রাথমিকভাবে অনিয়মের সত্যতা পায়।