ফরিদপুরে পদ্মা নদীতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের দশ মন ইলিশ জব্দ

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে প্রজনন মৌসুমে “মা ইলিশ সংরক্ষণ” অভিযানে পদ্মা নদীতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। বৃহষ্পতিবার ভোর রাতে ৫.০ টার সময় ফরিদপুর জেলার সদরপুর উপজেলার চর নাসিরপুর, দিয়ারা নারিকেল বাড়ীয়া ও আকুটের চরসহ পদ্মা নদীতে অভিযানের সময় মাছধরা জেলেদের বিভিন্ন ট্রলারে দশ মন ইলিশ মাছসহ মাছ ধরার নিষিদ্ধ দুই লক্ষ মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়।

এ সময় মাছধরা পঁচিশজন জেলেকে মাছসহ আটক করা হয় । সরকারি আদেশ অমান্য করায় আটককৃত জেলেদের দন্ডবিধি-১৮৬০ অনুযায়ী একজনকে একমাসের ও বাকিদের বিশ দিন করে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। জব্দকৃত কারেন্ট জাল সবার সম্মুখে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয় এবং ইলিশ মাছ সদরপুরের বিভিন্ন এতিমখানায় ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে বন্টন করে দেয়া হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সজল চন্দ্র শীল। আদালতকে সহযোগিতা করেন সদরপুর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ফাতেমা আক্তার পান্না ও সদরপুর থানা পুলিশের সদস্যরা।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সজল চন্দ্র শীল বলেন,সরকারি আদেশে ০১-২২ অক্টোবর পর্যন্ত প্রজনন মৌসুমে সকল প্রকার ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহন, মজুদ, বাজারজাতকরণ, ক্রয়- বিক্রয় ও বিনিময় বন্ধ রয়েছে। নিষেধাজ্ঞা চলাকালীন সময়ে প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত থাকবে ।

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি