তাদের অপরাধ ছিল তারা খেটে খাওয়া মানুষ!

আমাদের দৈনন্দিন জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ বাহন হচ্ছে রিকশা। সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে অটো বা ব্যাটারি চালিত যান, যার মধ্যে ব্যাটারি চালিত রিকশার সংখ্যাই বেশি। যার ফলে বেড়েছে যানজট। যানজট কমানোর জন্য এই রিক্সা ও ব্যাটারি চালিত রিকশা জব্দ করে বুলডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দিয়েছে বগুড়া জেলা প্রশাসন।

বুধবার দুপুরে শহরের সাত মাথায় জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধায়নে এই ধ্বংসযজ্ঞ দেখা যায়। অনেক কাকুতি মিনতি কান্না কাটি করেও নিজেদের রিকশা গুলো রক্ষা করতে পারেননি চালকেরা। বুলডোজার সামনে দাঁড়িয়ে মিনতি জানায় চালক রবিউল ইসলাম।

অভিযান চালিয়ে যানজট নিরসনের উদ্দেশ্যে কোন রকম বিকল্প কর্মসংস্থানের বেবস্থা না করে দিয়ে খেটে খাওয়া মানুষের পরিবারের একমাত্র আয়ের উৎস এভাবে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। পরিবারের সকলকে নিয়েই তারা এখন পথে। বন্ধ হয়ে গেছে ৩ বেলা আহারের এক মাত্র অবলম্বন। তাদের ঋণের টাকা পরিশোধ করার কোন পথ আর তাদের সামনে নেই।

আমাদের সমাজে যারা সবচেয়ে বড় দুর্নীতি করে যাচ্ছে, আইন ভঙ্গ করছে দেশের অর্থনীতির খতি সাধন করছে তারা সব সময়ই থাকছে সাজা থেকে অনেক দূরে। অথচ যারা মাথার ঘাম পায় ফেলে নিজেদের পরিবারের মুখে এক মুঠো খাবার তুলে দিতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে, তারাই আজ সব কিছু থেকে বঞ্চিত। তাদের সব চেয়ে বড় অপরাধ ছিল তারা খেটে খাওয়া মানুষ।