লঙ্কান ক্রিকেটের উন্নতিতে মাহেলা-সাঙ্গা

শ্রীলংকার ক্রিকেটে এখন চলছে ক্রান্তিকাল। কিংবদন্তিতুল্য তারকা ক্রিকেটারদের অবসরে যাওয়ার পর আবারও শূন্য থেকে শুরু করতে হচ্ছে ছিয়ানব্বইয়ের বিশ্বকাপজয়ীদের। এই দলে প্রতিভার কমতি নেই, শুধু দরকার কঠিন সময় উৎরাতে পারার আত্মবিশ্বাস। তরুণদের মধ্যে সেই আত্মবিশ্বাসের রসদ যোগাতেই অভিনব এক সিদ্ধান্ত নিয়েছে লংকান ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি)।

কুমার সাঙ্গাকারা, মাহেলা জয়াবর্ধনে, অরবিন্দ ডি সিলভা, অনুরা তেনাকুনদের নিয়ে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে; যার নেতৃত্বে থাকবেন এসএলসির সাবেক প্রেসিডেন্ট হেমাকা আমারাসুরিয়া। তাদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে লংকান ক্রিকেটকে পুনর্গঠন করার। দেশের ক্রিকেটের হারানো ঐতিহ্য ফেরাতে একসঙ্গে কাজ করবে শ্রীলংকার ক্রীড়া মন্ত্রণালয়, এসএলসি আর নবগঠিত এই কমিটি।

নতুন এই কমিটি ইতোমধ্যেই বর্তমান সময়ে শ্রীলংকা ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় সমস্যাটি খুঁজে বের করে ফেলেছে। কমিটির সদস্যরা মনে করছেন, খেলোয়াড়রা ঘন ঘন ইনজুরিতে পড়ছেন বলেই নিজেদের ছন্দটা ধরে রাখতে পারছে না।

কমিটির অন্যতম সদস্য অরবিন্দ ডি সিলভা বলেছেন, ‘স্বল্প সময়ে আমরা একটি বিষয় খুঁজে পেয়েছি, সেটা হলো ঘন ঘন ইনজুরি। যখনই আমরা ভালো খেলতে থাকি, গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়রা ইনজুরিতে পড়েন। আমাদের এটার কারণ অনুসন্ধান করতে হবে। কেন এটা হচ্ছে এবং কিভাবে এ থেকে পরিত্রান পাওয়া যায় সেটা আমাদের বের করতে হবে।’

অনেক দিন ধরেই শ্রীলংকার ঘরোয়া ক্রিকেট কাঠামোর সমালোচনা করে আসছিলেন মাহেলা জয়াবর্ধনে। নতুন দায়িত্ব পাওয়ার পর স্বভাবতই এই বিষয়টি সবার নজরে এনেছেন তিনি। তবে শুধু বৈঠকে নয়, লংকান ক্রিকেটকে এগিয়ে নিতে পরিকল্পনাগুলো সঠিকভাবে কাজে লাগানোর তাগিদ দিলেন কিংবদন্তী এই ক্রিকেটার, ‘আমরা তো শ্রীলংকা ক্রিকেটের অংশ নই। যারা এগুলো প্রয়োগ করবে, তাদের দায়িত্ব। যদি সেটা না হয়, তবে এই বৈঠক-সভা সবই সময়ের অপচয় হবে।’