ব্যাংক খাতের উত্থানেই ইতিবাচক ধারায় ফিরেছে পুজিবাজার

ব্যাংকের শেয়ারের উত্থানে । টানা ছয় কার্যদিবস সূচক কমার পর সপ্তম দিনে উত্থানে ফিরেছে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক। আর চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সূচক বেড়েছে সাত কার্যদিবস পর।

বৃহস্পতিবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৬২৪ কোটি ৮৩ লাখ টাকা আর সূচক বেড়েছে ১৩ পয়েন্ট। আগেরদিন লেনদেন ছিল ৭৭৫ কোটি ৩৪ লাখ টাকা। আর সূচক কমেছিল প্রায় ২৫ পয়েন্ট। বাজারসংশ্লিষ্টরা বলছেন, ব্যাংক খাতের উত্থানেই ইতিবাচক ধারায় ফিরেছে বাজার। এদিন তালিকাভুক্ত ৩০টি ব্যাংকের ২৯টিতেই শেয়ারের দাম বেড়েছে। আর একটির শেয়ারের দাম কমেছে। দুই বাজারেই সূচক বাড়লেও ডিএসইতে লেনদেন কমেছে। একই সঙ্গে বেশির ভাগ কম্পানির শেয়ারের দামও কমেছে। দিনভর সূচকের ওঠানামার মধ্য দিয়েই দিনের লেনদেন শেষ হয়েছে।

দিন শেষে সূচক দাঁড়িয়েছে ছয় হাজার ৯২ পয়েন্ট। ডিএস-৩০ মূল্যসূচক ৪ পয়েন্ট কমে দুই হাজার ১৭৭ পয়েন্ট ও ডিএসইএস শরিয়াহ সূচক ৪ পয়েন্ট কমে এক হাজার ৩৪৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হওয়া ৩৩১ কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৩১টির, কমেছে ১৬০টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৪০ কম্পানির শেয়ারের দাম। লেনদেনের ভিত্তিতে শীর্ষে রয়েছে শাহজালাল ব্যাংক, উত্তরা ব্যাংক, যমুনা ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক, ইফাদ অটোস, সামিট পাওয়ার, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স ও গ্রামীণফোন।

দাম বৃদ্ধির শীর্ষে রয়েছে ডাচ্-বাংলা ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ইনস্যুরেন্স, পূবালী ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক, ইস্টার্ন ইনস্যুরেন্স, যমুনা ব্যাংক, এফএএস ফাইন্যান্স, এভেন্স টেক্সটাইল, মুন্নু সিরামিকস ও ড্রাগন সোয়েটার। অন্যদিকে দাম কমার শীর্ষে রয়েছে সামিট পাওয়ার, সামিট অ্যালায়েন্স পোর্ট, মেঘনা কনডেন্সড মিল্ক, সাফকো স্পিনিং, কে অ্যান্ড কিউ, পেনিনসুলা চিটাগাং, সেন্ট্রাল ফার্মা, রহিম টেক্সটাইল, আরএসআরএম স্টিল ও তাল্লুু স্পিনিং।

এদিকে সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৯২ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। আর সূচক বেড়েছে ১৩ পয়েন্ট। আগেরদিন লেনদেন হয়েছিল ৬৫ কোটি ৪১ লাখ টাকা। আর সূচক কমেছিল প্রায় ৪৪ পয়েন্ট। বৃহস্পতিবার লেনদেন হওয়া ২৪১ কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৮৩টির, কমেছে ১৩৫টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ২৩ কম্পানির শেয়ারের দাম।