‘ঘোষিত ২০৪০ সালের আগেই ডিজিটাল শিক্ষা রূপরেখা বাস্তবায়ন’

রাজধানীর বিয়াম মিলনায়তনে ডিজিটাল শিক্ষা সম্মেলনে তিনি জানান, ঘোষিত ২০৪০ সালের আগেই এই রূপরেখা বাস্তবায়ন করা হবে। আর তা হবে ২০২০ সালের আগে।

দেশে শিক্ষার ডিজিটাল রূপান্তর ঘোষিত সময়ের আগেই হবে বলে একটি অনুষ্ঠানে বলেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। অনুষ্ঠানে ইস্রাফিল আলম বলেন, দেশের প্রতিটি উপজেলা ও গ্রামকে ডিজিটাল করতে হবে। তিনি শিক্ষার ডিজিটাল রূপান্তরে বিজয় ডিজিটালের প্রচেষ্টাকে স্বাগত জানিয়ে একে সহায়তা করার আশ্বাস প্রদান করেন। বিশেষ অতিথি শিক্ষা সচিব সোহরাব হোসেন বলেন, সরকার শিক্ষার ডিজিটাল রূপান্তরে বেসরকারি খাতের প্রচেষ্টাকে সকল প্রকারের সহায়তা করবেন তারা। বিজয়-নেটিজেনের ডিজিটাল শিক্ষা কার্যক্রমের প্রশংসা করেন তিনি।

বেসিস সভাপতি ও অনুষ্ঠানের সভাপতি মোস্তাফা জব্বার বলেন, সারা দুনিয়ার বদলে যাওয়া পরিপ্রেক্ষিতকে বিবেচনা করে এখনই জ্ঞানকর্মী গড়ে তুলতে না পারি তবে ডিজিটাল যুগে আমাদের অস্তিত্ত্ব বিপন্ন হবে। তিনি প্রাথমিক স্তরে কম্পিউটার শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করার আহ্বান জানান। একই সঙ্গে তিনি শিশুদেরকে প্রোগ্রামিংয়ের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেবার জন্য সকলের প্রতি অনুরোধ করেন। এসময় বেসিস স্কুল শিক্ষকদেরকে প্রোগ্রামিংয়ের জন্য যে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে এবং শিশুদের প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার যে আয়োজন করছে তার উল্লেখ করেন।

দিনব্যাপী সম্মেলনে বিজয় শিশুশিক্ষার উপর প্রেজেন্টেশন দেন বিজয় ডিজিটালের সিইও জেসমিন জুঁই, স্বাগত বক্তব্য দেন নেটিজেন আইটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক রায়হান নোবেল। বিশেষ অতিথি ছিলেন নওগাঁ ও ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক।