শেয়ার বিক্রির চাপে বাজারে সূচক কমছে

সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস গতকাল সোমবার দেশের দুই পুঁজিবাজারেই কম্পানির শেয়ারে বড় দরপতন হয়েছে। লেনদেন কমার সঙ্গে সূচকেও বড় পতন হয়েছে। দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক কমেছে ৫৯ পয়েন্ট আর চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক কমেছে ১১১ পয়েন্ট। 

লোকসানে থাকায় তলানিতে নেমেছে আইসিবি ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড কম্পানির শেয়ার। ঊর্ধ্বমুখী বাজারে প্রায় সব কম্পানির শেয়ারের দাম বাড়লেও এখনো অভিহিত মূল্যের নিচেই রয়েছে ব্যাংকটির শেয়ার। সোমবার বাজারে বড় দরপতনের দিনও বেড়েছে ব্যাংকটির শেয়ারের দাম। যদিও একটি ব্যাংক ছাড়া সব ব্যাংকেরই শেয়ারের দাম কমেছে।

ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৬৬৬ কোটি ১৭ লাখ টাকা। আগের দিনের চেয়ে লেনদেন কমেছে। রবিবার লেনদেন হয়েছিল ৬৬২ কোটি ১ লাখ টাকা। আর সূচক কমেছিল ৫ পয়েন্ট। আইডিএলসির বাজার পর্যবেক্ষণ বলছে, চার কার্যদিবসে ডিএসইর সূচক কমেছে ১৩০ পয়েন্ট। একটি ছাড়া সব ব্যাংকের শেয়ারের দাম কমেছে। মোট লেনদেনের ৩৯ শতাংশ ব্যাংক খাতের। এই খাতের শেয়ারের দাম কমেছে ২.৫ শতাংশ, যদিও আইসিবি ইসলামী ব্যাংকের শেয়ারের দাম বেড়েছে ১.৮ শতাংশ।

বাজার পর্যালোচনায় দেখ যায়, লেনদেন শুরুর পর থেকেই শেয়ার বিক্রির চাপে বাজারে সূচক কমতে থাকে। এতে সূচকের বড় পতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। দিনশেষে সূচক দাঁড়িয়েছে ছয় হাজার ১০৬ পয়েন্ট। ডিএস-৩০ মূল্যসূচক ১৩.৮৪ পয়েন্ট কমে দুই হাজার ১৮৫ পয়েন্ট ও ডিএসইএস শরিয়াহ্সূচক ৮.৬১ পয়েন্ট কমে এক হাজার ৩৫৭ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হওয়া ৩২০ কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১০৮টির, কমেছে ১৮০টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৪২ কম্পানির শেয়ারের দাম।

তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, ব্যাংক খাতের শেয়ারে সবচেয়ে বড় সংশোধন হয়েছে। প্রায় ৯৭ শতাংশ কম্পানিরই শেয়ারের দাম কমেছে। শেয়ারপ্রতি সবচেয়ে দাম কমেছে ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের শেয়ারে। এদিন কম্পানিটির প্রতি শেয়ারের দাম কমেছে ২.৬০ টাকা। আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতেও বেশির ভাগ কম্পানির শেয়ারের দাম কমেছে। তালিকাভুক্ত ২৩টি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৫টি শেয়ারের দাম বেড়েছে আর একটি কম্পানির শেয়ারের দাম অপরিবর্তিত। বাকি ১৭টি কম্পানিরই শেয়ারের দাম কমেছে।