শচীনের জায়গায় নাম বসালেন ১৭ বছরের পৃথ্বী

দুলীপ ট্রফিতে নিজের অভিষেকে সেঞ্চুরি হাঁকালেন পৃথ্বি শাও। একই সঙ্গে ১৭ বছরের এই ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকারের সঙ্গে নিজের নাম বসালেন। দুলীপ ট্রফিতে নিজের অভিষেকেই সেঞ্চুরি করেছিলেন শচীনও। সোমবার ভারত লাল দলের হয়ে নীল দলের বিপক্ষে এই কীর্তি গড়েন পৃথ্বি। ওপেনিংয়ে নেমে ১৫৪ রানের ইনিংস খেলেছেনে এই কিশোর।

অভিষেকে সেঞ্চুরি করাটা এই বয়সেই যেন অভ্যাসে পরিণত করে ফেলেছেন পৃথ্বি শাও। স্কুল ও ক্লাব লেভেলে রানের ফোয়ারা ছুঁটিয়ে উঠে আসেছেন বড় পর্যায়ে। রঞ্জি ট্রফিতেও নিজের প্রথম ম্যাচেই শতক হাঁকিয়েছিলেন। তামিল নাড়ুর বিপক্ষে মুম্বাইয়ের হয়ে সেমিফাইনালে খেলেছিলেন ১২০ রানের ইনিংস। সেই ধারাবাহিকতায় এবার দুপীল ট্রফির অভিষেকটাও স্মরণীয় করে রাখলেন।

স্কুল ক্রিকেটের এক ম্যাচে ৩৩০ বলে ৫৪৬ রান করে প্রথম লাইম লাইটে আসে পৃথ্বি। সব পর্যায়ের ক্রিকেট মিলিয়ে এটি তৃতীয় সর্বোচ্চ রান। শচীনের সঙ্গে তুলনা এখনই ঠিক নয়, তবে এই কিশোরের উঠে আসাটা সম্ভাবনার আলো জ্বালিয়েই। সোমবার দুলীপ ট্রফিতে শচীনের পর সবচেয়ে কম বয়সী ক্রিকেটার হিসেবে সেঞ্চুরিটি স্পর্শ করেছেন পৃথ্বি। ১৭ বছর ৩২০ দিন বয়সে পৃথ্বি এই সেঞ্চুরি করেছেন। শচীনের চেয়ে যা মাত্র ৫৮ দিন কম। টেন্ডুলকার রঞ্জি, ইরানি ও দুলীপ ট্রফি তিনটিতেই অভিষেকে সেঞ্চুরি করেছিলেন।

শতরানটি করার পথে এদিন পৃথ্বি খেলেছেন ২৪৯ বল। তার ইনিংসে ছিল ১টি ছয় ও ১৮টি চার। শতকটি করার পথে অধিনায়ক দিনেশ কার্তিকের সঙ্গে তৃতীয় উইকেটে গড়েছেন ২১১ রানের জুটি। তার এমন ব্যাটিংয়ে ভর করে ৫ উইকেটে ৩১৭ রান নিয়ে প্রথম দিন শেষ করে ভারত লাল দল।

কদিন আগেই ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে ৫ ম্যাচের সিরিজে খেলেন পৃথ্বি। ডানহাতি ব্যাটসম্যানের সেখানে রান ছিল ২১, ৪৮, ২৬, ১৩ ও ৫২। মুম্বাইয়ের এই ক্রিকেটার এখন পর্যন্ত দুটি প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেট খেলেছেন। যেখানে তার রান ৫৯.৭৫ গড়ে ২৩৯। ১টি সেঞ্চুরির সাথে রয়েছেন ১টি ফিফটি।