আজ থেকে শুরু শারদীয় দুর্গোৎসব

বাঙালি হিন্দুদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান শারদীয় দুর্গোৎসব আজ মঙ্গলবার শুরু হচ্ছে। আজ ষষ্ঠী, দেবীর বোধন, আমন্ত্রণ ও অধিবাস। দেবী দুর্গার মূল প্রতিমায় পূজা শুরু। আজ থেকে আগামী শনিবার বিজয়া দশমী পর্যন্ত ঢাকের বাদ্যে মুখরিত থাকবে পূজামণ্ডপগুলো।

পূজারি ও ভক্তরা উদ্বেলিত হবেন দেবী মহামায়ার অধিষ্ঠানে। সবাই শামিল হবে পৃথিবীর সব আসুরিক শক্তির বিরুদ্ধে বিজয় ও মানুষের কল্যাণ প্রতিষ্ঠার প্রার্থনায়।

মহানগর সর্বজনীন পূজা কমিটি জানিয়েছে, ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির মেলাঙ্গনে কেন্দ্রীয় পূজামণ্ডপে আজ সকাল ৯টা ৫৮ মিনিটের মধ্যে ষষ্ঠী বিহিত পূজা হবে। সায়ংকালে হবে দেবীর আমন্ত্রণ ও অধিবাস। মেলাঙ্গনে সন্ধ্যায় ভক্তিমূলক সংগীতানুষ্ঠান হবে।

জগতের মঙ্গল কামনায় এবার দেবীর আগমন ঘটছে নৌকায় চড়ে। দেবী বিদায় নেবেন ঘোড়ায় চড়ে। শ্বশুরবাড়ি কৈলাস থেকে কন্যারূপে তিনি বাপের বাড়ি বেড়াতে মর্ত্যলোকে আসছেন। সঙ্গে আসছেন চার সন্তান—বিদ্যার দেবী সরস্বতী, ঐশ্বর্যের দেবী লক্ষ্মী, সিদ্ধিদাতা গণেশ এবং পৌরুষের প্রতীক কার্তিক।

কাল বুধবার মহাসপ্তমী, বৃহস্পতিবার মহাষ্টমী, শুক্রবার মহানবমী এবং আগামী শনিবার বিজয়া দশমী উদ্‌যাপনের মাধ্যমে উৎসব শেষ হবে।

এবার রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে ৩০ হাজার ৭৭টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা হবে। এর মধ্যে ঢাকায় হবে ২৩১টি। ঢাকায় এবার ছয়টি মণ্ডপে প্রথমবারের মতো পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এগুলো হচ্ছে পল্টন বধির স্কুল, তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা এলাকার বিজি প্রেস ও বেগুনবাড়ী, ক্যান্টনমেন্ট থানা এলাকা ও বারিধারা ডিওএইচএসে।

শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে পৃথক বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাণীতে রাষ্ট্রপতি আশা করেন, শারদীয় দুর্গোৎসব সত্য-সুন্দরের আলোয় ভাস্বর হয়ে, ধর্ম-বর্ণনির্বিশেষে সবার মধ্যে সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যের বন্ধনকে আরও সুসংহত করবে।

 প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘ধর্ম যার যার, উৎসব সবার—আমরা সবাই একসাথে উৎসব পালন করব।’

এ ছাড়া দুর্গাপূজা উপলক্ষে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিরোধিদলীয় নেতা রওশন এরশাদ, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রমুখ।