টাইগারদের বোলিংয়ে আছে গভীরতা আর বৈচিত্র্যও: ওয়ালশ

প্রোটিয়াদের সবচেয়ে দুর্বল জায়গাটিতে আঘাত হানার জন্য সবচেয়ে ধারালো অস্ত্রটিই হাতে নেই মুশফিকের। তাতে কি, বাংলাদেশের বোলিংয়ে যথেষ্ট গভীরতা আছে বলেই মনে করছেন টাইগার বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ।

দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানরা বরাবরই তুলনামূলকভাবে স্পিনের মুখে দুর্বল। আর আসন্ন টেস্ট সিরিজের বাংলাদেশের অন্যতম সেরা স্পিন অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান দলে নেই। ফলে আক্ষেপটা একটু বেশিই হয়তো বোধ করছেন টেস্ট অধিনায়ক মুশি।

তিনি হয়তো মনে মনে ভাবছেন, যদি সাকিব থাকতো তাহলে হয়তো তার বলগুলো মোকাবিলা করাই আমরা-ডুপ্লেসিসদের জন্য সবচেয়ে বেশি কঠিন হতো।

কিন্তু তবুও মাথায় কোনও বাজে চিন্তা নিতে চান না টাইগার হাথুরুর শিষ্যরা। সাকিবকে ছাড়াও যে সেরাটা খেলতে পারলে ভালো ফলাফল করা সম্ভব দলের বাকি তারকাদের তা ভালো করেই জানা। তাই সেদিকেই খেলোয়াড়দের মনোযোগী করে তুলতে চাইছেন কোচ ও টিম ম্যানেজমেন্ট।

আর বোলিংটাও যে দুর্বল হবে তাও কিন্তু নয়- মিরাজ, তাইজুলদের মতো স্পিনারদের সহায়ক হয়ে উঠতে পারেন মাহমুদউল্লাহ-সাব্বিররা। পেসারদের সংখ্যা তো গুনে গুনে ৫ জন। রুবেল, শফিউল, মোস্তাফিজ, তাসকিন আর শুভাশিষদের গতির সঙ্গে চাইলে বাড়তি শক্তির যোগান দিতে পারবেন সৌম্য সরকার।

বোলিং স্কোয়ার্ডের দিকে চোখ রেখে বোলিং কোচ ওয়ালশও বেশি আশাবাদী। তিনি বলেন, ‘বোলিংয়ে গভীরতা আছে, আছে বৈচিত্র্যও। আর এটাকে আমরা শুরু মাঠে প্রয়োগ করতে চাই। আমরা যদি স্পটে বল করতে পারি তবে ওদের ২০ উইকেট নেয়াটা মোটেই কঠিন হবে না। বাংলাদেশের বোলাররা সেটি করে দেখাতে সবাই মুখিয়ে আছে। আশা করি ভালো কিছু হবে। ’