স্বল্প খরচে যোগাযোগের জন্য রোহিঙ্গা ক্যাম্পে টেলিটকের বুথ

কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পগুলোয় টেলিটকের বুথ বসানো হবে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। শনিবার রাজধানীর বিটিআরসি’র কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। স্বল্প খরচে রোহিঙ্গাদের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য এ বুথ স্থাপনের পরিকল্পনা করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, আগামী ৩ দিনের মধ্যে এসব এলাকায় টেলিটকের টুজি নেটওয়ার্ক নিশ্চিত করা হবে। একই সঙ্গে মন্ত্রী হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, যারা নিবন্ধিত সিম রোহিঙ্গাদের হাতে তুলে দিয়েছেন তাদের শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে। তিনি বলেন, তাদের (রোহিঙ্গা) কাছে যে অপারেটরের সিম পাওয়া যাবে, নিয়মানুযায়ী তাদের জরিমানা করা হবে।

তিনি বলেন, আগামী কয়েক দিনের মধ্যে ক্যাম্পে বুথ বসানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এসব বুথ থেকে রোহিঙ্গারা মোবাইল ফোনে কথা বলার সুযোগ পাবেন। খুব কম মূল্যে তাদের এই সেবা দেওয়া হবে। তবে যেসব রোহিঙ্গা নিবন্ধনের আওতায় আসছেন তাদের কাছে সিম বিক্রি করা যাবে কিনা সেটি পরবর্তীতে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের সিদ্ধান্তের পর নির্ধারণ করা হবে।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, আমরা শরণার্থীদের জন্য মানবিক। তাদের খাদ্য,  স্বাস্থ্য নিয়ে আন্তরিক। তাদের যোগাযোগের বিষয় নিয়ে আমরাও আন্তরিক। রোহিঙ্গারা বাংলাদেশি সিম ব্যবহার করছে-সম্প্রতি এমন খবর গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে। মূলত কিছু অসাধু ব্যবসায়ী, সিম বিক্রেতা নিজের নামে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম কিনে রোহিঙ্গাদের কাছে বিক্রি করেছেন। কিন্তু নিজের নামে কেনা সিম রোহিঙ্গাদের কাছে বিক্রি করা অপরাধ। মোবাইল অপারেটরদের টাওয়ারভিত্তিক ১ জুলাইয়ের পর সেই এলাকায় কোনও কোনও সিম সচল হয়েছে তা শনাক্ত করা হচ্ছে। বিক্রেতাদের তালিকাও আমাদের কাছে আছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

টেলিটক থেকে আপাতত লোকাল কল করতে পারবেন রোহিঙ্গারা। আর এ সংক্রান্ত কার্যক্রম পরিদর্শন করতে যাবেন তারান হালিম।