বর্ষসেরা সেরা লড়াইয়ে আবারও রোনালদো-মেসি-নেইমার

ফিফা বর্ষসেরা পুরস্কার হিসেবে এখন আর ব্যালন ডি’অর নেই। ওটা ছিল ফ্রেঞ্চ ফুটবল ম্যাগাজিনের সম্পত্তি। তারা সেটা ফেরত নিয়েছে। এ কারণে ফিফা গত বছর থেকেই বর্ষসেরার নাম দিয়েছে ‘দ বেস্ট’। বর্ষসেরার এই পুরস্কারের জন্য এবার তিন জনের সংক্ষিপ্ত তালিকায় আগের চেনা তিন মুখ- ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, লিওনেল মেসি এবং নেইমার ডি সিলভা জুনিয়র।

২০১৫ সালে ছিল ফিফা ব্যালন ডি’অর। সেবারও সেরার মঞ্চে উঠেছিলেন এই তিন তারকা ফুটবলার। যদিও তখন মেসি এবং নেইমার ছিলেন বার্সেলোনায়। এবার নেইমার চলে গেলেন পিএসজিত। ফরাসি ক্লাবটির হয়ে এই প্রথম কেউ ফিফা বর্ষসেরার মঞ্চে দাঁড়াল। যদিও নেইমার মনোনীত হয়েছেন বার্সার পারফরম্যান্স দিয়েই। ২০১৬ সালে এই পুরস্কারের জন্য ঘোষিত তালিকায় মেসি-রোনালদোর সঙ্গে ছিলেন অ্যাটলেটিকোর আঁতোয়া গ্রিজম্যান।

শুক্রবার লন্ডনে তিন জনের নামের তালিকা ঘোষণা করা হয়। বিজয়ীর হাতে বর্ষসেরা পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে ২৩ অক্টোবর লন্ডনের পাল্লাডিয়াম থিয়েটারে। এ নিয়ে ফিফা’র বর্ষসেরা ফুটবলারের লড়াইয়ে পাঁচবার মেসির সঙ্গে একেবারে মুখোমুখি রোনালদো। এবার সেরার পুরস্কার যদি সিআর সেভেন জিতে যান, তিনিও মেসির সমান হয়ে যাবেন। ৫বার ফিফার বর্ষসেরা হয়েছিলের মেসি। রোনালদো হয়েছেন চারবার।

রোনালদোর পায়ে স্প্যানিশ লা লিগা এবং চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছে রিয়াল মাদ্রিদ। টানা দু’বার রিয়ালকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ উপহার দিয়েছেন তিনি। ১২ গোল করে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতা রিয়াল তারকা। আর মেসি ও নেইমার বার্সেলোনাকে দিয়েছেন কোপা ডেল রে। গত মওসুমে ৩৭টি গোল করে লা লিগায় সর্বোচ্চ গোলদাতা ছিলেন মেসি। চলতি মৌসুমে অবশ্য বার্সার জার্সি ছেড়ে পিএসজিতে নাম লিখিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমার।

সেরা গোলকিপারের জন্য মনোনিত হয়েছেন জুভেন্তাস অধিনায়ক জিয়ানলুইজি বুফন। তার নেতৃত্বে টানা ছয় বার সিরিয়া-এ জিতেছে জুভেন্তাস। গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রানার্সআপ ছিল বুফনের জুভেন্তাস। বুফনের সঙ্গে লড়াইয়ে রয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের গোলকিপার কেইলর নাভাস এবং বায়ার্ন মিউনিখের ম্যানুয়েল ন্যুয়ার।