‘উবারকে নিয়ে যা বলা হয়েছে তা বিশ্বাস করি না’

বিশ্বের বিভিন্ন বড় শহরে ব্যাপকভাবে জনপ্রিয় হলেও বিভিন্ন দেশে আইনি জটিলতা ও সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে উবারকে। লন্ডনেও উবারের কাজের ধরন ও শর্ত নিয়ে বিভিন্ন  শ্রমিক ইউনিয়ন, ব্ল্যাক ক্যাবের চালক ও আইনপ্রণেতাদের আপত্তি রয়েছে।

লন্ডনে লাইসেন্স বন্ধে হতাশ উবার প্রধান। বিবিসির এক প্রতিবেদনে শুক্রবার জানানো হয়, উবারের লাইসেন্স আর নবায়ন করা হবে না, এবং বিষয়টি তাদের জানিয়ে দিয়েছে লন্ডন ট্রান্সপোর্ট অথরিটি। এই নিয়ন্ত্রক সংস্থা বলছে, উবারের কর্পোরেট দায়িত্বশীলতাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বড় ধরনের ঘাটতি রয়েছে, যা নাগরিকদের জন্য নিরাপত্তা ঝুঁকি তৈরি করতে পারে। রয়টার্সের খবরে বলা হয়, লন্ডনে উবারের লাইসেন্সের মেয়াদ চলতি মাসের শেষেই তামাদি হয়ে যাবে। তবে উবার কর্তৃপক্ষ ট্রান্সপোর্ট অথরিটির এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবে এবং তার নিষ্পত্তির আগ পর্যন্ত লন্ডনে উবারের ট্যাক্সি সেবায় বাধা নেই।

লন্ডনের এমন সিদ্ধান্তে ইতোমধ্যেই এর বিরোধিতা করতে জোরালো অবস্থান নিয়েছে উবার। প্রতিষ্ঠানটি জানায়, “এই সিদ্ধান্ত আপনাকে শহরে যাতায়াতের ক্ষেত্রে সুবিধাজনক পথ থেকে বঞ্চিত করবে এবং লাইসেন্সধারী ৪০ হাজার চালক যারা আমাদের অ্যাপের ওপর নির্ভর করে তাদেরকেও বঞ্চিত করবে।”

কর্মীদেরকে ইমেইলে উবার প্রধান দারা খোসরোশাহি বলেন, “তিনি লন্ডনের অবস্থা নিয়ে হতাশ এবং উবারকে নিয়ে লন্ডন যা বলেছে তা সত্য বলে তিনি বিশ্বাস করেন না। কর্মীদের সব সমালোচনাকে অন্যায্য না বলে নিজস্ব প্রতিফলনের দিকে নজর দেওয়া উচিত।”