মুন্সীগঞ্জে ২৯ ঘন্টা পর শ্রমিকের মৃতদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মুক্তারপুর এলাকার আইডিয়াল টেক্সটাইল মিলসে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ৬ জনের মৃতদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে। নিহতদের পরিবারকে মিলস কর্তৃপক্ষ ৫০হাজার টাকা, সামিট এলাইন্স পোর্ট লিমিটিড পক্ষ থেকে ৫০হাজার টাকা এবং জেলা প্রশাসন থেকে ৫ হাজার টাকা বাড়িয়ে ২৫ হাজার টাকা দেওয়া হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার দুপুর মুন্সীগঞ্জ সদর হাসপাতাল থেকে জেলা প্রশাসক ও সিভিল সার্জনের উপস্থিতিতে দুপুর ৩টার দিকে বন্ঠন করা হয়। ফ্যাক্টরির মালিক কর্তৃপক্ষ সাইফুল ইসলাম লিটন ও মোমেনুল ইসলাম মোমিন জানান, মালিক পক্ষ্য দেশের বাহিরে থাকায় বিলম্ব সত্বেও লাশ দাফন ও বহনে প্রতিটি পরিবারকে ৫০হাজার টাকা করে দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া মালিকপক্ষ দেশে আসলে জেলা প্রশাসনের সাথে সমন্ময় করে আরো আর্থিক অনুদান প্রদান করা হবে।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(এডমিন) সাইফুল ইসলাম সবুজ জানান, মৃতদেহগুলো ময়না তদন্ত করতে সময় লাগাতে হস্তান্তরে বিলম্ব হয়েছে। মৃতদেহ বহন করা এ্যাম্বুলেন্স দিয়ে গন্তব্যে পৌছাতে শিমুলিয়া ঘাটে টোল ফ্রি এবং আগে অগ্রাধিকার দেওয়ার বিষয়টি পুলিশ সুপার নিশ্চিত করেছেন। ময়না তদন্ত নিখুঁতভাবে নিশ্চিত করা যায় তার জন্য সময় লেগেছে বলে জানান তিনি। সামিট এলাইন্স পোর্ট লিমিটিডের চীফ অপারেটিং অফিসার আব্দুল হাকিম জানান, প্রতিটি পরিবারকে ৫০হাজার টাকা করে দেওয়া হচ্ছে।

নিকটস্থ ফ্যাক্টরি হওয়ায় তাদের এই অনুদান দেওয়া হচ্ছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা, সিভিল সার্জন সিদ্দিকুর রহমান, জেলা অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট একে এম শওকত আলম মজুমদার, মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগির হোসাইনসহ জেলার বিভিন্ন কর্মকর্তারা। উল্লেখ্য, বুধবার সকাল ১০টার দিকে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় ৫সদস্যের একটি তদন্ত কমটি গঠন এবং ৬জনকে আটক করা হয়েছে।

আল মাসুদ, মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি