ঢাকা সফরে আসছেন ওআইসি মন্ত্রীবৃন্দ 

হলি আর্টিজানের মতো ট্র্যাজেডি পেছনে ফেলে এবং সিজারে তাভেল্লা ও কুনিও হোসির হত্যার ক্ষত মুছে পর্যটনশিল্প একটি মজবুত অবস্থান সৃষ্টি করতে যাচ্ছে।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, ধর্মান্ধ ও উগ্রবাদীদের ভ্রুকুটি উপেক্ষা করে পর্যটনশিল্প এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, গত ১১-১৬ সেপ্টেম্বর চীনের চেংডুতে অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের পর্যটনবিষয়ক সংস্থা ইউএনডাব্লিউটিওর ২২তম জেনারেল অ্যাসেম্বিলিতে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়াবিষয়ক কমিশনের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছে। আগামী ১২-১৪ নভেম্বর ওআইসিভুক্ত দেশগুলোর পর্যটনমন্ত্রীদের সম্মেলন ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। এগুলো পর্যটন খাতে বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ার স্বীকৃতি।

গতকাল মিন্টো রোডে মন্ত্রীর সরকারি বাসভবনে বিশ্ব পর্যটন দিবস-২০১৭ উপলক্ষে গণমাধ্যমের সম্পাদক ও সিইওদের সম্মানে আয়োজিত প্রাতরাশের সূচনায় এ কথা বলেন রাশেদ খান মেনন। এ আয়োজনে প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান, সমকাল সম্পদক গোলাম সারওয়ার, বণিক বার্তা সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহমুদ, বাংলাদেশ বেতারের ডিজিজি (নিউজ) নারায়ণ চন্দ্র শীল, আরটিভির সিইও আশিক রহমান, মনিটর সম্পাদক কাজী ওয়াহিদুল আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

তিনি পর্যটনশিল্পকে আরো এগিয়ে নিতে গণমাধ্যমের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেন।