কাভানিকে পিএসজি থেকে বের করে দেয়ার দাবি নেইমারের

নেইমার দ্য সিলভা জুনিয়র বনাম এডিনসন কাভানি। এই দু’জনকে নিয়ে প্যারিস সঁ জরমঁ-তে যে বিতর্কের আগুন লেগেছে, তার উত্তাপ ক্রমে বাড়ছে।

স্প্যানিশ প্রচার মাধ্যমের খবর, নেইমার নাকি ক্লাবের কাছে দাবি জানিয়েছেন, কাভানিকে বিক্রি করে দিতে হবে। উরুগুয়ের ফুটবলারের সঙ্গে খেলা তার পক্ষে অসম্ভব হয়ে পড়ছে।

এ খবর ছড়িয়ে পড়ার পরেই সম্ভবত ড্যামেজ কন্ট্রোলে নেমে পড়ে পিএসজি। এরপরে কাভানি বিবৃতি দেন, তার আর নেইমারের মধ্যে কোনও সমস্যা নেই। কাভানি বলেন, এসব বানানো কথা। আমি জানি না কেন এসব বলা হচ্ছে। ফুটবলে এ ধরনের ঘটনা হামেশাই হয়। আমাদের মধ্যে কোনও সমস্যা নেই। সব ঠিক আছে। ‘

কাভানি এসব কথা বললেও জল কিন্তু অনেক দূরই গড়িয়েছে। লিয়ঁ’র বিরুদ্ধে ম্যাচে পেনাল্টি মারা নিয়ে দুই তারকার মধ্যে ঝামেলা লেগে যায়। নেইমার নিজে এ নিয়ে মুখ খোলেননি। কিন্তু মঙ্গলবার খবর ছড়িয়ে পড়ে যে, ইনস্টাগ্রামে কাভানিকে ‘আনফলো’ করেছেন নেইমার। এভাবে কাভানিকে নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে সরিয়ে দেওয়ার পরে জল্পনা আরও তীব্র হয়েছে যে, নেইমারের সঙ্গে উরুগুয়ের তারকার সম্পর্ক মোটেই ঠিক হয়নি। বরং স্প্যানিশ প্রচারমাধ্যমের কথা ঠিক হলে সম্পর্কের আরও অবনতি হয়েছে।

নেইমার নাকি পিএসজি’র মালিক নাসের আল খেলাইফিকে ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন, কাভানির সঙ্গে একই দলে খেলা তার পক্ষে সম্ভব নয়। ব্রাজিলিয়ান মহাতারকার দাবি, কাভানিকে ক্লাব থেকে সরিয়ে দিতে হবে।

ম্যাচের পরে নেইমার-কাভানি ঝামেলা নাকি ড্রেসিংরুম পর্যন্ত গড়ায়। সতীর্থদের হস্তক্ষেপে সেই ঝামেলা থামে। এর পরে কাভানি অন্য দরজা দিয়ে বেরিয়ে যান। দু’জনের মধ্যে এই ঝামেলা নিয়ে টুইটার-ফেসবুকে বিদ্রুপের শিকার হতে হয়েছে নেইমারকে। এখন দেখার বিষয়, পিএসজি এই বিতর্ক কীভাবে সামলায়।