যুবরাজের ছয় ছক্কার ১০ বছর
ভারতের জার্সি পরা হয়নি অনেকদিন। ভারতীয় ক্রিকেট দলও সাফল্যের তুঙ্গে। কিন্তু ছয় ছক্কার মালিককে আর ডাকেন না নির্বাচকরা। ১০ বছর আগের আজকের দিনটি স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে বিশ্ব ক্রিকেটে। কিংসমেডে সেই দিনেই লেখা হয়েছিল নতুন ইতিহাস। যুবরাজ সিংয়ের নাম উঠে এসেছিল রেকর্ড বুকে।
২০০৭ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর। আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে খেলতে নেমেছিল ভারত। বল করতে এসেছিলেন স্টুয়ার্ট ব্রড। ঠিক যেভাবে রেকর্ড বুকে নাম লিখিয়ে ফেলে সারারাত ঘুমোতে পারেননি যুবরাজ ঠিক সে ভাবে পর পর ছয়টা ছক্কা দু:স্বপ্ন হয়ে গিয়েছিল ব্রডের।
সেদিন শুরুটা ভালই করে দিয়েছিলেন দুই ওপেনার বীরেন্দ্র শেবাগ (৬৮) ও গৌতম গম্ভীর (৫৮)। কিন্তু ব্রডের সেই ওভার ছাপিয়ে গিয়েছিল সব কিছুকে। ক্রিকেটের ইতিহাসে এটা ছিল চতুর্থবার। কিন্তু টি২০তে সেটাই প্রথম। যেখানে একজন ব্যাটসম্যান এক ওভারে সব বলেই ছক্কা হাকান। প্রথম বলটি যুবি পাঠান মিড উইকেটের উপর দিয়ে। বল চলে গিয়েছিল স্টেডিয়ামের বাইরে। দ্বিতীয় বল উড়ে গিয়েছিল স্কয়ারের উপর দিয়ে। তৃতীয় বল চলে যায় কভারের উপর দিয়ে। তখনও সবাই ভাবছে এটাই শেষ। কিন্তু চমকের বাকি ছিল আরও অনেকটা। এ বার ব্রড বলের অ্যাঙ্গেল পরিবর্তন করে যুবরাজকে সমস্যায় ফেলার চেষ্টা করেন। কিন্তু অফ স্টাম্পের বাইরের ফুলটস বলেও লেখা ছিল ছক্কা। পঞ্চম বল গ্যালারিতে পাঠালেন রীতিমতো হাঁটু মুড়ে বসে। ছয় ছক্কার কোটা শেষ করেন ব্রডকে মিড উইকেটের উপর দিয়ে ছক্কা হাকিয়ে। ১২ বলে হাফ সেঞ্চুরি করেন যুবি। টি২০তে দ্রুততম হাফ সেঞ্চুরির খাতায়ও নাম লিখিয়ে ফেলেন। হিন্দুস্তান টাইমস।