দেড় হাজার কোটি টাকার লেনদেন ছারাল ডিএসই

চলতি বছরের শুরুতে পুঁজিবাজারে লেনদেন ঊর্ধ্বমুখী হয়। চলতি বছরের ২৫ জানুয়ারি ডিএসইতে দেড় হাজার কোটি লেনদেন হয়। আট মাস পর আবারও দেড় হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন।

সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস গতকাল সোমবার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে সূচক বাড়লেও কমেছে লেনদেন। আর ডিএসইতে সূচক কমলেও লেনদেন বেড়েছে। সোমবার ডিএসইতে লেনদেন হয় এক হাজার ৫২৫ কোটি ৮৯ লাখ টাকা। আর সূচক কমেছে ৪ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ২০৮ কোটি তিন লাখ টাকা। আর সূচক বেড়েছিল ৩৬ পয়েন্ট।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, লেনদেন শুরুর পর থেকে সূচক ঊর্ধ্বমুখী হয়। সকাল পৌনে ১১টা পর্যন্ত সূচক বৃদ্ধির পর কমে সূচক। এতে লেনদেন শেষ হওয়া পর্যন্ত সূচক কমে। দিন শেষে সূচক দাঁড়ায় ছয় হাজার ২৩৫ পয়েন্ট। ডিএসইএস সূচক ১১ পয়েন্ট কমে দাঁড়ায় এক হাজার ৩৮০ পয়েন্ট আর ডিএস-৩০ সূচক ৯ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ২১৭ পয়েন্ট। লেনদেন হওয়া ৩৩১ কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১০১টির, কমেছে ১৯০টির আর অপরিবর্তিত ৪০ কম্পানির শেয়ার দাম।

এদিকে ব্যাংক খাতের লেনদেন হয়েছে সবচেয়ে বেশি। লেনদেন হওয়া ৩৩ শতাংশ কম্পানির শেয়ার দাম কমেছে। আর ৭৩ শতাংশ কম্পানির শেয়ার দাম বেড়েছে। আগের দিনও ৯০ শতাংশের বেশি কম্পানির শেয়ার দাম বেড়েছিল। সোমবার সবচেয়ে বেশি দাম বেড়েছে রূপালী ব্যাংকের। ব্যাংকটির শেয়ার দাম বেড়েছে ৬.৪০ টাকা। উত্তরা ব্যাংকের বেড়েছে ১.৩০ টাকা, ট্রাস্ট বাংকের ১.১০ টাকা এবং স্টান্ডার্ড ও ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের শেয়ার দাম বেড়েছে ১ টাকা করে।