দিনাজপুর বীরগঞ্জে প্রতিমা ভাংচুর, আতঙ্কে এলাকাবাসী

দিনাজপুর বীরগঞ্জ উপজেলার সুজালপুর গ্রামের সনাতনপাড়ায় দূর্গা মন্ডবের প্রতিমা ভাংচুর করেছে দূবৃত্তরা। এ নিয়ে বেশ দুশ্চিন্তায় এলাকাবাসী। কে বা কাহারা এই ভাংচুরের ঘটনা ঘটিয়েছে পুলিশ এখনো কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। ঘটনাস্থল প্রশাসন সহ জন প্রতিনিধিরা পরিদর্শন করেছেন। জরিতদের তারাতারি আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করতে স্থানীয়দের দাবী।

দিনাজপুর বীরগঞ্জ উপজেলার সুজালপুর গ্রামে সনাতনপাড়ার একটি পুজা মন্ডবের ৪টি প্রতিমার মাথা ভেঙ্গে পালিয়ে যায় দূবৃত্তরা। ১৮ সেপ্টেম্বার সোমবার ভোর রাতে কোন এক সময় এই ঘটনাটি ঘটিয়েছে বলে দাবী করেছেন এলাকাবাসী। এই পুজা মন্ডবে গত বছর থেকে হিন্দু ধর্মের সবচেয়ে বড় উৎসব দূর্গা পুজা পালিত হয়ে আসছে। এমন একটি ঘটনায় বেশ আতঙ্কের মধ্যে সময় পার করছে স্থানীয় হিন্দু ধর্মাম্বলিরা। ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে প্রশাসন আবার উৎসব মূখর পরিবেশ সৃষ্ঠি করবে এমনটা দাবী গ্রামবাসীদের।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন দিনাজপুর বীরগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলম হোসেন। তিনি বলেন, এই ভাংচুর ঘটনায় জরিতদের খুব তারাতারি আটক করতে প্রশাসনের সর্বাত্বক চেষ্টা চলছে। দিনাজপুর-১ আসনের এমপি ও জাতীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল ঘটনা স্থলে দ্রুত ছুটে আসে। এবং এলাকাবাসীর উদ্দেশ্যে বলেন, এই ঘটনা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে ঘটনানো হয়েছে। তিনি আরো বলেন এটা এলাকার ভাবমূর্তি নষ্ট পাশাপাশি কিছু দুশ্চক্ররা এটা বলে বেড়াচ্ছে যে, এলাকার এমপি হিন্দু সম্প্রদায়ের হয়েও হিন্দুদের নিরাপদ দিতে পরেনা। এমপি আরো বলেন এই ভাংচুরের পরেও আমাদের দূর্গা পুজার উৎসবে কোন পরিবর্তন হবেনা। যারা ঘটনার সাথে জরিত তাদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির ব্যাবস্থা করা হবে।

দিনাজপুর পুজা উদ্যাপন কমিটি ও দিনাজপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি, সরূপ কুমার বক্সী বাচ্চু ডেইলী নিউজ ২৪ কে জানান, প্রশাসনের কাছে এই ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত দাবীসহ এই সব ঘটনা যাতে আর না ঘটে সেদিকে প্রশাসনের নজর বাড়াতে হবে। তবে উৎসব মূখর পরিবেশে দূর্গা পুজা পালন করতে এলাকাবাসীকে সব রকম সহযোগিতার কথা জানালেন তিনি। জেলায় এই বছর দূর্গা উৎসবে এ নিয়ে সদর ও বীরগঞ্জ উপজেলায় দুইটি প্রতিমা ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এর আগে ২৬ আগস্ট সদরের মাশিমপুর ও ফুলতলা স্মশানঘাটে মোট দুইটি প্রতিমা ভাংচুরের জন্য দুইজনকে আটক করে পুলিশ।

ফখরুল হাসান পলাশ, দিনাজপুর প্রতিনিধি