ডাম্বেল দিয়ে বাবার মাথা থেঁতলে দিয়েছে ছেলে অর্ণব!

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ডাম্বেল দিয়ে মাথা থেঁতলে অবসরপ্রাপ্ত শুভাশিস (৬০) নামের এক ব্যাংক কর্মকর্তাকে হত্যা করেছে তার ছেলে অপূর্ব (২৮)। এ ঘটনায় অপূর্বকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

সবেমাত্র দুপুরের খাওয়া শেষ হয়েছে। শোয়ার ঘরে বিশ্রামের তোড়জোড় করছিলেন অবসরপ্রাপ্ত ব্যাঙ্ককর্তা শুভাশিস সান্যাল। আচমকাই তাঁর আর্ত চিৎকার ভেসে আসে স্ত্রী সুতপাদেবীর কানে। ছুটে গিয়ে তিনি দেখেন, ডাম্বেল দিয়ে বাবার মাথা থেঁতলে দিচ্ছে ছেলে অর্ণব! চোখেমুখে অস্বাভাবিক হিংস্রতা। চিৎকার শুনে ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা। তত ক্ষণে নিথর হয়ে গিয়েছেন শুভাশিসবাবু। রক্তাক্ত ডাম্বেল হাতে স্থবির হয়ে দাঁড়িয়ে অর্ণব। পরে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে সুতপাদেবীর পরিবারের দাবি, অর্ণব তিন বছর ধরে স্কিৎজোফ্রেনিয়ায় ভুগছে। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, অর্ণব ডায়মন্ড হারবারের একটি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে ইলেকট্রনিক্স ও টেলিকম প্রযুক্তি নিয়ে স্নাতকে ভর্তি হয়েছিল। কলেজের হোস্টেলে থেকেই পড়াশোনা করতো সে।২০১৪ সালে তার মানসিক সমস্যা ধরা পড়লে মাঝপথে পড়াশোনা ছাড়তে হয়।

সম্প্রতি আবার কলেজে ভর্তি হতে চেয়েছিল অর্ণব। তবে অসুস্থ অবস্থায় কলেজে ভর্তি করানো উচিত হবে কি না, তা নিয়ে দন্দে ছিলেন শুভাশিসবাবু। এ নিয়ে গত কয়েক দিনে একাধিক বার বাবা ও ছেলের কথা কাটাকাটি হয়েছিল। সুতপাদেবীর দাবী, অসুস্থ হওয়ার পর থেকে অর্ণব মাঝেমধ্যে নানা বিষয়ে অশান্ত হয়ে উঠলেও এতটা হিংস্র হতে কোনও দিন দেখেন নি তিনি। এমন কাণ্ড যে অর্ণব ঘটাতে পারে, তা পাঁচ মিনিট আগেও বুঝতে পারেননি সুতপাদেবী।