ঈদের আগে বেতন না পাওয়ায় হোটেল ম্যানেজারকে খুন!

রাজধানীর বংশালের নবাবপুর রোডের হোটল আরাফাতের দ্বিতীয় তলা থেকে হোটেলটির ম্যানেজার আনোয়ার হোসেনের (৩৫) রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার সকালে রক্তাক্ত অবস্থায় লাশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠায় পুলিশ। 

রেস্টুরেন্টের ম্যানেজারকে খুনের মামলায় একমাত্র আসামি মোশাররফকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার দিবাগত রাতে ভোলার লালমোহন থানার লর্ড হার্ডিঞ্জ গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। রবিবার ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার আব্দুল বাতেন। ঈদের আগে বেতন না পাওয়ায়  গত ২৫ আগস্ট রাতে ক্ষুব্ধ হয়ে হোটেল ম্যানেজারকে খুন করে মোশাররফ।

আব্দুল বাতেন জানান, ঈদের ১৫/২০ দিন আগে রাজধানীর বংশাল এলাকায় হোটেল আরাফাত অ্যান্ড রেস্টুরেন্টে কাজ শুরু করেন মোশাররফ। কিন্তু ঈদের আগেই বেতন পরিশোধের জন্য চাপ দেওয়া শুরু করেন তিনি। তাৎক্ষণিকভাবে পুরো টাকা না দিলেও তাকে দুই হাজার টাকা দেয় হোটেল কর্তৃপক্ষ। গত ২৫ আগস্ট ঘটনার রাতে হোটেলের নিচের কক্ষে ম্যানেজার ঘুমাচ্ছিলেন এবং দ্বিতীয় তলায় ছিলেন ৪/৫ জন কর্মচারি। এদের মধ্যে একজন রাত ২/৩টার দিকে এসে লোহা দিয়ে ম্যানেজারের মাথায় আঘাত করে। পরবর্তীতে সবজি কাটার ছুরি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে। ঘটনার পর অন্য কর্মচারীরা হোটেলে অবস্থান করলেও মোশাররফকে পাওয়া যাচ্ছিল না। তার ঠিকানাও হোটেল কর্তৃপক্ষের কাছে ছিল না। পরবর্তীতে নারায়ণগঞ্জে মোশাররফের আগের কর্মস্থলে খোঁজ নেওয়া হয়। কিন্তু সেখানে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তার পাশের বাড়ির একজনকে পাওয়া যায়। তার মাধ্যমে পরবর্তীতে আসামিকে গ্রেফতার করা হয়।