প্রথম ইনিংসে ৪৩ রানের লিড পেয়েছে বাংলাদেশ

দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্মিথকে ফিরিয়ে লিডের স্বপ্ন দেখা শুরু করে বাংলাদেশ। তবে সামনে প্রতিরোধ গড়েন তোলেন রেনশ-হ্যান্ডসকম্ব চমৎকার জুটি।রেনশ-হ্যান্ডসকম্ব দুইজনে মিলে গড়েন ৬৯ রানের জুটি। তবে সে জুটিও ধরে রাখতে পারলো না বেশিক্ষণ। ৩৩ রান করা হ্যান্ডসকম্বকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে সাজঘরে ফেরান তাইজুল।

হ্যান্ডসকম্বের বিদায়ের পর খুব বেশি সময় উইকেটে থাকতে পারলেন না রেনশ। সাকিবের বলে সৌম্যকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরে গেছেন এক প্রান্ত আগলে রেখে খেলতে থাকা অজি ওপেনার রেনশ। আউট হওয়ার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ৪৫ রান। একে একে বাংলাদেশি বোলারদের হাতে পরাস্ত হতে থাকে অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ সংগ্রহ করে ২৬০ রান। এই রান নিয়েও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে লিড নেয়া সম্ভব? স্টিভেন স্মিথের দলের ব্যাটিং লাইন-আপের সামনে এটা অসম্ভবই মনে হতে পারে অনেকের কাছে। কিন্তু তাদের ধারণা ভুল প্রমাণ করলেন সাকিব আল হাসান, মেহেদী হাসান মিরাজরা।

স্পিন ঘূর্ণিতে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানদের কুপোকাত করেছেন বাংলাদেশের স্পিনাররা। প্রথম ইনিংসে তাই অস্ট্রেলিয়ার দৌড় থেমে যায় ২১৭ রানে। তাতে প্রথম ইনিংসে ৪৩ রানের লিড পেয়েছে বাংলাদেশ। এগিয়ে থেকেই তাই দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামবে মুশফিকুর রহীমের দল।