দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই অস্ট্রেলিয়ার বিপর্যয়, লিডের স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ

দীর্ঘ এগারো বছর পর বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়া পরস্পরের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্ট খেলতে নামল, মিরপুরের সেই ম্যাচের প্রথম দিন থেকেই চলছে জমজমাট ক্রিকেট যুদ্ধ। ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার দিনে শেষ বেলায় অস্ট্রেলিয়ার ৩ উইকেট নিয়ে বড় লিডের লক্ষ্য নিয়ে দ্বিতীয় দিন শুরু করে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্মিথকে ফিরিয়ে লিডের স্বপ্ন দেখা শুরু করে বাংলাদেশ। তবে সামনে প্রতিরোধ গড়েন তোলেন রেনশ-হ্যান্ডসকম্ব চমৎকার জুটি।

রেনশ-হ্যান্ডসকম্ব দুইজনে মিলে গড়েন ৬৯ রানের জুটি। তবে সে জুটিও ধরে রাখতে পারলো না বেশিক্ষণ। ৩৩ রান করা হ্যান্ডসকম্বকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে সাজঘরে ফেরান তাইজুল। হ্যান্ডসকম্বের বিদায়ের পর খুব বেশি সময় উইকেটে থাকতে পারলেন না রেনশ। সাকিবের বলে সৌম্যকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরে গেছেন এক প্রান্ত আগলে রেখে খেলতে থাকা অজি ওপেনার রেনশ। আউট হওয়ার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ৪৫ রান। একে একে বাংলাদেশি বোলারদের হাতে পরাস্ত হতে থাকে অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানরা।

লাঞ্চের পর প্রথম ওভারেই আঘাত হেনেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। প্রান্ত বদল করে বোলিং আক্রমণে ফেরা অফ স্পিনার এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেছেন ম্যাথু ওয়েডকে। রিভিউ নিলে বেঁচে যেতেন অস্ট্রেলিয়ার উইকেটরক্ষক। হকআই অনুযায়ী বল স্টাম্প মিস করতো। বাদ যায়নি গ্লেন ম্যাক্সওয়েলও। গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে এগিয়ে আসতে দেখতে ঝুলিয়ে দিলেন সাকিব আল হাসান। একটু টেনে করা বল পেলেন না অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার। স্টাম্পিংয়ের সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেননি মুশফিকুর রহিম। ২৩ রান করেই বিদায় নিতে হল অস্ট্রেলিয়ান এই ক্রিকেটারকে।