কোথাও ঠাঁই না পেয়ে রাস্তায় সন্তান প্রসব করলেন কিশোরী

ধর্ষণের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত সেলিব্রেটি ভণ্ড ধর্মগুরুকে নিয়ে যখন ভারতে তোলপাড়, তখন দেশটির অপর প্রান্ত ঝাড়খণ্ডের চান্ডিল এলাকার বাসিন্দারা সাক্ষী হলেন নির্মম এক ঘটনার। মাত্র ১৭ বছর বয়সী এক কিশোরী রাস্তায় সন্তান প্রসব করলেন।

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, চান্ডিল এলাকার সরাইকেলা-খারসাওয়ানের ওই কিশোরী তার প্রেমিকের সঙ্গে গ্রাম থেকে চলে আসেন। দীর্ঘদিন একসঙ্গে থাকার পর গর্ভবতী প্রেমিকাকে রেখে পালিয়ে যায় প্রেমিক। মেয়েটি বাড়ি ফিরতে চাইলেও তার পরিবারের সদস্যরা লোকলজ্জার ভয়ে মুখ ঘুরিয়ে নেয়। ফলে মেয়েটির ঠাঁই হয় রাস্তায়। চার মাস রাস্তাতেই কাটায় এই কিশোরী।

২১ আগস্ট সন্ধ্যায় মেয়েটির প্রসব যন্ত্রণা শুরু হয়। স্থানীয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে গিয়ে সাহায্য চাইলে সেখানকার কর্মীরা তাতে রাজি হয়নি বলে অভিযোগ করেন ওই কিশোরী। স্বাস্থ্য কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ বলছে, যেহেতু তার সঙ্গে কোনো অভিভাবক নেই, সেহেতু তারা তাকে ভর্তি করাতে পারবেন না। পরের দিন সকালে রাস্তায় মেয়েটি একটি শিশুকন্যার জন্ম দেয়। এসময় রাস্তা দিয়ে ওম প্রকাশ শর্মা নামের এক ব্যক্তি যাচ্ছিলেন। তিনি মেয়েটিকে শিশু-সহ রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। শিশুটির জন্মনাড়িও তখনো তার মায়ের শরীরে ছিল।

এমন সময়ে হাসপাতাল থেকে লখীন্দ্র হাঁসদা নামের এক চিকিৎসক সেখানে এসে নাড়ি কেটে শিশুটিকে বিচ্ছিন্ন করেন। ওমপ্রকাশের উদ্যোগে একটি অটোরিকশা জোগাড় করা সম্ভব হয়। পরে শিশু ও মাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।