স্বাধীনতা চেয়ে দেশের জাতীয় পতাকায় আগুণ, চাইলেন পাকিস্তানের সাহায্য (ভিডিও সহ)

নাগাল্যান্ডের স্বাধীনতা চেয়ে দেশের জাতীয় পতাকা পোড়ানো হল। অবমাননার এখানেই শেষ নয়। নাগাদের স্বাধীনতার জন্য পাকিস্তানের সাহায্য চাইল এক তরুণী। ১.২৩ মিনিটের এই ভিডিও তুলে দেওয়া হয়েছে ইউটিউবে। কোন অজ্ঞাত জায়গা থেকে এই ভিডিও তোলা হয়েছে তা জানা যায়নি। তবে এর পেছনে চীনের হাত রয়েছে কিনা সেই সন্দেহ ক্রমশ দানা বাঁধছে।

প্রায় দেড় মিনিটের ওই ভিডিওতে একটি বিবৃতিও দেওয়া হয়েছে। যেখান ওই তরুণী বলে, ‘বন্ধু পাকিস্তান, প্রথমেই আমি আপনাদের স্বাধীনতা দিবসের অভিনন্দন জানাই। আমি আপনাদের জানাতে চাই নাগারাও ১৪ আগস্ট স্বাধীনতা দিবস পালন করেছে। কারণ আপনারাও একই দিনে স্বাধীনতার স্বাদ পেয়েছেন। দুর্ভাগ্যবশত, পাকিস্তানের মানুষ স্বাধীনতা পেলেও আমরা ভারতের দাসত্বে থেকে গিয়েছি। আজ পর্যন্ত নাগারা স্বাধীনতার জন্য লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। নাগাদের স্বাধীনতায় আপনাদের সাহায্য চাইছি। ভারতের পতাকা জ্বালিয়ে দেওয়াই এই মুহূর্তে বুদ্ধিমানের কাজ। ’

এরপর ভারতের পতাকা পুড়িয়ে ফের বক্তব্য রাখে ওই অজ্ঞাতপরিচয়ের সেই তরুণী। তার সংযোজন, ‘আমরা ভারতীয় নই। ভারতে থাকতে চাই না। ১৫ আগস্টকে আমরা কালো দিন হিসাবে মনে করি। আমাদের নিজস্ব ভাষা, সংস্কৃতি, সেনাবাহিনী আছে। কেন আমরা ভারতের গোলামি করব? আমরা স্বাধীনতা চাই। ’

বক্তব্যের শেষে মহাত্মা গান্ধীর একটি উদ্ধৃতিকে সেই তরুণী পুঁজি করে। ভিডিওতে বলা হয়, মহাত্মা গান্ধী নাগাদের স্বাধীনতার পক্ষে কথা বলেছিলেন। ‘ভারতীয় যুক্তরাষ্ট্রে নাগারা আসতে না চাইলে তাদের জোর করা হবে না। কোনও নাগাকে হত্যা করার আগে আমায় গুলি করুন। ’ এমন কথা বলেছিলেন মহাত্মা। নাগাদের ওপর হামলার কোনও অধিকার নেই ভারতের।

https://youtu.be/y9ovvvGHlMI