দোষী সাব্যস্ত হল রাম রহিম, ভক্তদের তাণ্ডবে নিহত ৩১

ধর্ষণের মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়া ভারতের ডেরা সাচ্চা সৌদা সংগঠনের প্রধান ও স্বঘোষিত ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম সিংয়ের অনুসারীদের তাণ্ডবে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩১-এ পৌঁছেছে। বিক্ষোভকারী ও নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে আড়াইশ’র বেশি মানুষ আহত হয়েছেন। আজ (শনিবার) সকালে গোলযোগপূর্ণ সিরসাতে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে ফ্ল্যাগমার্চ করা হয়েছে। এদিকে, সহিংসতার আশঙ্কায় পাঞ্জাব ও হরিয়ানাগামী ৪৪৫ টি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে।

চণ্ডীগড় পুলিশের পক্ষ থেকে গুরমিতের ছয় ব্যক্তিগত নিরাপত্তাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে অস্ত্রের পাস্পাশি কেরোসিন তেলও উদ্ধার হয়েছে। ভয়াবহ সহিংসতার পর হরিয়ানার পাঁচকুলা শহর দৃশ্যত শান্ত রয়েছে। তবে চারদিকে থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে। ১৪৪ ধারা বলবৎ রয়েছে।

গতকাল (শুক্রবার) পঞ্চকুলায় কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে ধর্ষণ মামলায় দোষী সাব্যস্ত হন। আগামী ২৮ আগস্ট তার বিরুদ্ধে সাজা ঘোষণা করা হবে। তাকে এদিনই কারাগারে পাঠানো হয়।

দোষী সাব্যস্ত হল রাম রহিম, ভক্তদের তাণ্ডবে নিহত ৩১ (ভিডিও সহ)

দুর্বৃত্তদের তাণ্ডব, নিরাপত্তা বাহিনীর গুলি

আদালতের রায় ঘোষণার পর গুরমিতের কয়েক লাখ ভক্ত হরিয়ানা, পাঞ্জাব, হিমাচল প্রদেশ, দিল্লিসহ বেশ কয়েকটি রাজ্যে তাণ্ডব চালায়। তারা নিরাপত্তা বাহিনীকে টার্গেট করে লাঠি ও তলোয়ার নিয়ে হামলা চালানোসহ কয়েকশ’ গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নিরাপত্তা বাহিনী প্রথমে লাঠিচার্জ, পরে কাঁদানে গ্যাস ও পানি কামান ব্যবহার করে। কিন্তু তাতেও অবস্থা আয়ত্তে না আসায় গুলি চালাতে হয়।

দুর্বৃত্তরা পাঞ্জাবের মানসায় আয়কর ভবনে আগুন ধরিয়ে দেয়। এছাড়া পাঞ্জাবের মালৌট এবং বাল্লুয়ানা স্টেশনে আগুন ধরিয়ে দেয় তাণ্ডব সৃষ্টিকারীরা। সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে দিল্লিতেও। লোনি চকে বাসে আগুন দেওয়া হয়। আনন্দবিহার, খায়ালা, জাহাঙ্গীরপুরী, বদরপুর এলাকাতেও একই ঘটনা ঘটে। দুর্বৃত্তরা আনন্দবিহার স্টেশনে দাড়িয়ে থাকা রেওয়া এক্সপ্রেসের দু’টি কামরায় আগুন ধরিয়ে দেয়।

শুক্রবার পঞ্চকুলার বিশেষ সিবিআই আদালত গুরমিতকে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ এবং ৫০৬ ধারা অনুসারে দোষী সাব্যস্ত করেছে। তাকে এদিন রাত পৌনে ১০টা নাগাদ রোহতকের সুনারিয়া কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

রাম রহিমকে ভিআইপি সুবিধা

এদিকে, ধর্ষণের দায়ী দোষী ব্যক্তিকে কারাগারে ভিআইপি সুবিধা দেয়ায় বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। কারাগারের একটি রুমে এসি সুবিধাসহ বিশুদ্ধ খাবার পানি ও তারা সাহায্যার্থে একজন সহায়ক নিয়োগ করা হয়েছে। বিজেপিশাসিত হরিয়ানার নেতা-মন্ত্রীদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা থাকার সুবাদেই কী তাকে সাধারণ কয়েদির পরিবর্তে ভিআইপি অতিথি হিসেবে দেখা হচ্ছে? এই প্রশ্নই এখন বিভিন্ন মহলে দেখা দিয়েছে।

৩ দেশের নাগরিকদের ওপর ভ্রমণ সতর্কতা জারি

অন্যদিকে, ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভারত সফররত ব্রিটেনের নাগরিকদের উদ্দেশ্যে নিরাপত্তা নির্দেশিকা জারি করেছে ব্রিটেন। ব্রিটেন সরকারের পক্ষ থেকে জারি করা নির্দেশিকায় ভারতে যাওয়া যাত্রীদের স্থানীয় কর্মকর্তাদের পরামর্শ মানার কথা বলাসহ পরবর্তীতে আরো সহিংসতা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হয়েছে। নির্দেশিকায় স্থানীয় গণমাধ্যমে নজর রাখতে এবং নিজ নিজ ভ্রমণ সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করতে বলা হয়েছে।

এছাড়া আরো গোলযোগের আশঙ্কায় ব্রিটিশ ডেপুটি হাইকমিশন এবং চণ্ডীগড়ে ব্রিটিশ কাউন্সিল সোমবার পর্যন্ত বন্ধ থাকবে বলে ব্রিটেনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। অন্যদিকে, কানাডা থেকে ভারত সফররত সেদেশের নাগরিকদের সাবধানতা অবলম্বন করার জন্য বলা হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়া সরকারের পক্ষ থেকেও সেদেশ থেকে ভারত সফররত নাগরিকদের অত্যন্ত সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। পররাষ্ট্র ও বাণিজ্য বিভাগের পক্ষ থেকে এক নির্দেশিকায় স্থানীয় কর্মকর্তাদের পরামর্শ মেনে চালতে এবং একসঙ্গে অনেকজন একত্রিত না হওয়ার কথা বলা হয়েছে।