কোহলিকে টপকে শীর্ষে ধোনি

শ্রীলঙ্কা সফরে প্রথম হারের স্বাদ প্রায় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল যখন ৭ উইকেট হারিয়ে ভারত। তবু আশার দীপ নেভায়নি ভারত। ‘ক্যাপ্টেন কুল’ মহেন্দ্র সিং ধোনি আছেন না! অধিনায়কত্ব হয়তো বুঝিয়ে দিয়েছেন বিরাট কোহলির হাতে, নিজের ক্ষমতা তো নয়! চাপের মুখে আবারও দাঁড়িয়ে গেলেন ধোনি, প্রায় অসম্ভব মনে হওয়া এক জয় এনে দিলেন দলকে। ধোনি-বীরত্বে কাল দ্বিতীয় ওয়ানডেতে শ্রীলঙ্কাকে ৩ উইকেটে হারিয়েছে ভারত।

২৩৬ রানে ইনিংস থেমেছে শ্রীলঙ্কার। বৃষ্টিতে সে লক্ষ্য ৪৭ ওভারে ২৩১ এ নেমে আসার পরও শ্রীলঙ্কার জয়ের আসা কেউ করেনি। মাত্র ১৫ ওভারেই ভারতীয় দুই ওপেনার এক শ রান তুলে ফেলার পর তো কয় ওভার হাতে রেখে ভারত জয় পাবে সে হিসাবনিকাশ চলছিল। কিন্তু ১৬তম ওভারের তৃতীয় বলেই ধাক্কা খেল ভারত। আকিলা ধনাঞ্জয়ার বলে এলবিডব্লু হলেন রোহিত শর্মা। আগের দিনই বিবাহিতজীবনে পা রাখা ধনঞ্জয়া নিজেই বিয়ের উপহার আদায় করতে নামলেন। মাত্র ১৩ বলের মধ্যে ওয়ানডে নিজের প্রথম পাঁচ উইকেট পাওয়ার কীর্তি গড়ে ফেললেন, যেটা ইতিহাসেরই চতুর্থ দ্রুততম। ২১ বলের মধ্য ৬ উইকেট তুলে যখন থামলেন, ততক্ষণে ভারতীয় ইনিংস ধ্বংসস্তূপ।

বিনা উইকেটে ১০৯ রান থেকে ১৩১/৭-এ পরিণত হলো ভারত। উইকেটে স্বীকৃত ব্যাটসম্যান বলতে শুধু ধোনি। ভাগ্যিস, ক্যারিয়ারের প্রথম হাফ সেঞ্চুরি পেতে এ দিনটাকেই বেছে নিয়েছিলেন ভুবনেশ্বর কুমার! অষ্টম উইকেটে ধোনি (৪৫*) ও ভুবনেশ্বরের (৫৩*) ১০০ রানের জুটিতেই এল অবিশ্বাস্য এক জয়। এ জয়েই রেকর্ডের বইয়ে নিজের স্থানটা আরও একবার পাকা করে নিলেন ধোনি। রান তাড়া করে জেতা ম্যাচে সবচেয়ে বেশি ৩৯ বার অপরাজিত ছিলেন ধোনি। দুইয়ে থাকা জন্টি রোডসের এ কীর্তি ৩৩ বার। পেছনে ফেলে দিলেন কোহলিকেও। সফল রান তাড়াতে এখন সেরা গড় (৯৯.১৬) ‘নন-ক্যাপ্টেন কুল’ এর। অধিনায়ক কোহলি এখন দুইয়ে (৯৭.৬৮)।