লৌহজংয়ে বানভাসি মানুষের দূর্ভোগ বেড়ে চার স্কুল বন্ধ ঘোষণা

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার পদ্মাচরের বানভাসি মানুষের দূর্ভোগ বেড়েই চলেছে। বিশুদ্ধ খাবার পানির তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। সেই সাথে গো খাদ্যের মারাত্মক অভাব রয়েছে বলে জানা যায়।

আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে বানভাসি অনেকেই তাদের গরু খাসি বিক্রয় উপযোগী করতে পারছে না। পানিবন্দী থাকায় এ উপজেলার পদ্মাচরঞ্চলের পশু নিরাপদে রাখা যাচ্ছে না। এ ছাড়াও এ গৃহপালিত এই সব পশু নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। তাই তারা নাম মাত্র মূল্যে গরু ছাগল বিক্রি করে দিচ্ছে। খেটে খাওয়া মানুষের দুর্ভোগ আরো বেড়েছে। এদিকে পানিবন্দী গৃহস্তরা বানের পানি থেকে গরু ছাগল রক্ষা করাসহ গো খাদ্যের ব্যাপক সংকট থাকায় পদ্মা তীরবর্তী লৌহজং উপজেলার বাজার গুলোতে দুধের দাম বেড়ে গেছে। আগে যেখানে দুধের কেজি ছিল ৪০ থেকে ৫০ টাকা। এখন তা বেড়ে হয়েছে ৮০ থেকে ৯০ টাকা। এছাড়াও পদ্মা নিচু চঞ্চলেগুলাতে বানভাসি মানুষের মাঝে পানিবাহিত রোগ দেখা দিয়েছে।

এদিকে স্থানীয় সাংসদ অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন (এমিলি) বলেন, সরকারি সাহায্যের পাশাপাশি বানভাসি মানুষেদের পাশে বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহবান জানান। পদ্মাচরের বাসিন্দা ইয়াছিন মিয়া জানিয়েছেন পানির সাথে লড়াই করে টিকে আছি। শিশু বৃদ্ধের কষ্টের যেন শেষ নেই। শুকনো লাকড়ীর অভাবে রান্নার করা যাচ্ছে না।

জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা জানান, বানভাসিদের মাঝে ১০ টন চালবরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এদিকে বন্যার পানি বাড়ার কারণে লৌহজংয়ের তেউটিয়া ইউনিয়নের ঝাউটিয়া, কুমারভোগ ইউনিয়নের শিমুলিয়া গ্রাম বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে । অন্যদিকে লৌহজং উপজেলার ৪টি স্কুলবন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে। এর মধ্যে মেদেনীমন্ডল ইউনিয়নের ২নং জশলদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আলহাজ্ব আবদুস সাত্তার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, হলদিয়া ইউনিয়নের শিমুলিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়, কলমা-ধাইদা ইউনিয়নের শিমুলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

এদিকে জেলা কৃষি সম্প্রাসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবীদ মো. হুমায়ুন কবীর আমার বার্তা-কে জানান, চলমান বন্যায় প্রবোল স্রোতে পদ্মারচরের জমিগুলোর ৩০ হেক্টর বোনা আমন বালুর নিচে চাপা পড়েছে। এই আমন বিনষ্ট হওয়ায় এখন কৃষকরা দিশেহার হয়েরে পড়েছে।

 

আল মাসুদ, মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি