আসছেন প্রধানমন্ত্রী, প্রস্তুত কুড়িগ্রাম

বন্যাদুর্গত এলাকা পরিদর্শন ও বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করতে আজ (২০ আগস্ট) কুড়িগ্রাম সফরে আসছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সফর উপলক্ষে রাজারহাটের ছিনাই ইউনিয়নসহ কুড়িগ্রামে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। ইতোমধ্যে জেলার রাজারহাট উপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের পাঙ্গারাণী লক্ষ্মীপ্রিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে তৈরি করা হয়েছে মঞ্চ। 

কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার মেহেদুল করিম জানান, প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে রাজারহাটসহ জেলায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। সাদা পোশাকের পুলিশসহ প্রায় এক হাজার পুলিশ সদস্য, র‌্যাব, বিজিবি ও অন্যান্য বাহিনীর সদস্যরা সার্বক্ষণিক নিরাপত্তায় নিয়োজিত রয়েছেন। কুড়িগ্রাম জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মো. জাফর আলী বলেন, ‘কুড়িগ্রামের মানুষকে ভালোবাসেন বলেই শেখ হাসিনা বারবার ছুটে আসেন। আমরা জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর এ সফর সফল করতে সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছি।’

প্রসঙ্গত, দ্বিতীয় দফা বন্যায় দেশের উত্তারাঞ্চলের অবহেলিত এ জেলার নয় উপজেলায় ৬২টি ইউনিয়নের পাঁচ লাখের বেশি মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে রোপা আমনসহ ৫০ হাজার হেক্টর জমির ফসল। বন্যায় ঘর-বাড়ি তলিয়ে থাকায় বাঁধ ও উঁচু রাস্তায় আশ্রয় নিয়েছেন পানিবন্দি মানুষ। পর্যাপ্ত ত্রাণ ও বিশুদ্ধ পানিসহ স্যানিটেশন সমস্যায় ভুগছেন বানভাসি মানুষ। বন্যাদুর্গত এসব এলাকা পরিদর্শন ও ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের ত্রাণ সহায়তা দিতে কুড়িগ্রামের রাজারহাটে আসছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এদিকে, প্রধানমন্ত্রীর সফর উপলক্ষে আনন্দিত রাজারহাটসহ কুড়িগ্রামের মানুষ। দেশের সরকার প্রধানের আগমন ও তার হাতে সহায়তা পাওয়ার পাশাপাশি কাছ থেকে দেখতে পাওয়ার জন্য অপেক্ষা করছেন এলাকার মানুষ।

রাজারহাট উপজেলার ছিনাই ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান হক বুলু জানান, দেশের প্রধানমন্ত্রী আমার ইউনিয়নে আসছেন এর চেয়ে বেশি পাওয়া আর কিছুই হতে পারে না। বন্যার সব দুঃখ-কষ্ট ভুলে গেছি আমরা। আমি আশা করছি প্রধানমন্ত্রীর সফরের পর আমার ইউনিয়নসহ কুড়িগ্রাম জেলার বন্যাদুর্গত মানুষকে সহায়তার পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধগুলো দ্রুত সংস্কার ও মেরামত করা হবে।

মোঃ মনিরুজ্জামান, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি