সালমানের মাকে মামলা বহাল রাখার অনুরধ জানিয়েছেন রুবি

বেশ কিছুদিন ধরেই সালমান শাহ হত্যার প্রধান সাক্ষী হিসেবে পরিচিত আমেরিকা প্রবাসী রুবির ফেসবুকে সালমান হত্যাকাণ্ড নিয়ে প্রকাশিত ভিডিও নিয়ে চলছে আলোচনার ঝড়। তার প্রকাশিত ভিডিও গুলোর মধ্যে সালমান হত্যাকাণ্ডের জন্য নিজের স্বামীর পাশাপাশি সালমানের শুশুর বাড়ির লোকজনকেও দায়ী করেছেন তিনি। একই সঙ্গে নিজেকে সালমান হত্যার একমাত্র জীবিত প্রমাণ দাবি করে এ হত্যার সাক্ষী দেওয়ারও ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

সম্প্রতি আরও একটি ভিডিও প্রকাশের মাধ্যমে তিনি তার বর্তমান পরিস্থিতির কথা উল্লেখ করে বলেন, তিনি অনেক ঝুঁকির মুখে আছেন। তাকে যে কোন মুহূর্তে হত্যা করা হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তিনি। ভিডিওটিতে তিনি বলেন, আমাকে ডাক্তারের কাছে নেয়া হচ্ছে শুধু মাত্র আমাকে পাগল সাব্যস্ত করার জন্য। এছাড়াও তিনি সাল মান শাহ্‌ এর মাকে উদ্দেশ্য করে বলেন সালমান শাহ্‌ এর হটটা মামলা জেন বন্ধ না হয়। তিনি সাক্ষী হিসেবে পৌঁছাতে না পারলে যেন মামলা বহাল থাকে।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর নিজ বাসভবনের শোয়ার ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় সালমানের মরদেহ। ঘটনাটি আত্মহত্যা হিসেবে বিবেচনায় নিয়ে পুলিশ অপমৃত্যুর মামলা করলে তাতে আপত্তি জানায় পরিবার। এরপর সালমানের স্ত্রী সামিরা হক, চলচ্চিত্র প্রযোজক ও ব্যরবসায়ী আজিজ মোহাম্মাদ ভাইসহ ১১ জনকে সালমান শাহের মৃত্যুর জন্য দায়ী করে হত্যা মামলা দায়ের করে সালমানের পরিবার। অন্য অভিযুক্তরা হলেন সামিরার মা লতিফা হক লুসি, রিজভী আহমেদ ওরফে ফরহাদ, সহকারী নৃত্যপরিচালক নজরুল শেখ, ডেভিড, আশরাফুল হক ডন, মোস্তাক ওয়াইদ, আবুল হোসেন খান ও গৃহকর্মী মনোয়ারা বেগম। সালমান শাহ হত্যা মামলার যে ১১ জন তালিকায় নাম রয়েছে রাবেয়া সুলতানা রুবি ওরফে রুবির।