জিয়ার বিধিমালায় রাজনৈতিক দল হিসেবে নিবন্ধন করেছিল আ.লীগঃ ফখরুল

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের শাসন অবৈধ হলে আওয়ামী লীগও অবৈধ। কারণ জিয়া সরকারের সময় তাঁর (জিয়া) বিধিমালা অনুসরণ করেই রাজনৈতিক দল হিসেবে নিবন্ধন করেছিল আওয়ামী লীগ।

আজ শনিবার রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ৩৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জিয়াউর রহমানের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

প্রসঙ্গত, রায় ঘোষণার পর বিএনপি নেতাদের অভিনন্দনের দিকে ইঙ্গিত করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন, জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল এবং উড়ে এসে জুড়ে বসার কথাও বলা হয়েছে রায়ে। বিএনপি সে ক্ষেত্রে এই বিষয়টিও মেনে নিয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের পর্যবেক্ষণের মূল বিষয় থেকে দৃষ্টি ভিন্ন খাতে ফেরাতে ক্ষমতাসীনেরা জিয়াউর রহমানের শাসনামলের প্রসঙ্গ টেনে আনার কৌশল নিয়েছে। তিনি আরও বলেন, এটা হচ্ছে আওয়ামী লীগের সহজাত কৌশল। মূল বিষয়টা থেকে জনমতকে অন্যদিকে নিয়ে যাওয়া, উল্টাপাল্টা কথা বলে অন্যদিকে নিয়ে যেতে চাইছে তারা।

নির্বাচন কমিশনের সংলাপের বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘এই সংলাপের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে প্রধান নির্বাচন কমিশনার নিজেই বলেছেন, “আমরা তাদের কথা শুনব, আমরা কোনো সংলাপ করছি না।” সুতরাং এটাকে সংলাপ বলা যাবে না। উনি শুনবেন, তারপর উনিই সিদ্ধান্ত নেবেন। এ জন্য আমরা বলে এসেছি প্রধান নির্বাচন কমিশনার দলনিরপেক্ষ নন, তাঁর অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না।’

বন্যাদুর্গতদের ত্রাণ বিতরণে সরকার সচেষ্ট নয় বলে অভিযোগ করেন মির্জা ফখরুল। তিনি বলেন, ‘বন্যায় দুর্গতদের পাশেই দাঁড়াতে আমরাই প্রথম কাজ করছি। সরকার শুধু মুখের জোরে জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে। এটা আমরা কথা নয়, বন্যার্ত মানুষের কথা যে সরকার দুর্যোগ মোকাবিলা করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে।’

এ সময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, কেন্দ্রীয় নেতা শামসুজ্জামান, আমানউল্লাহ আমান, রুহুল কবির রিজভী, হাবিব উন নবী খান, শহীদউদ্দিন চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।