জাতির পিতাকে শ্রদ্ধা জানাতে আলোর মিছিল

১৫ই আগস্ট, বাঙ্গালি জাতির এক ভয়াবহ স্মৃতির নাম। এ রাতেই বাংলার মাটি হারিয়েছে সর্বকালের শ্রেষ্ঠ সন্তান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। শোকাহত এই দিনে আলোর মিছিল নিয়ে জাতির পিতাকে শ্রদ্ধা জানাতে সমাবেত হয়েছেন দেশের সকল রাজনৈতিক নেতাকর্মীর।

শোকাহত এই মাসের শুরু থেকেই পালন করা হচ্ছে নানা রকম কর্মসূচি। আজ ১৫ই আগস্ট দিবাগত রাত ১২টায় রাজধানীর ধানমণ্ডি ৩২ নং এ বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিকে স্মরণ করে মোম জ্বালিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সকল রাজনৈতিক নেতাকর্মী ও মুক্তিযোদ্ধা বাহিনী।

পঁচাত্তরের পনেরই আগস্ট কালরাতে ঘাতকরা শুধু বঙ্গবন্ধুকেই হত্যা করেনি, তাদের হাতে একে একে প্রাণ দিয়েছেন বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিনী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, সন্তান শেখ কামাল, শেখ জামাল, শিশু শেখ রাসেলসহ পুত্রবধু সুলতানা কামাল ও রোজি জামাল। পৃথিবীর এই ঘৃণ্যতম হত্যাকান্ড থেকে বাঁচতে পারেননি বঙ্গবন্ধুর সহোদর শেখ নাসের, ভগ্নিপতি আব্দুর রব সেরনিয়াবাত, ভাগ্নে যুবনেতা শেখ ফজলুল হক মনি, তার সহধর্মিনী আরজু মনি ও কর্নেল জামিলসহ পরিবারের ১৬ জন সদস্য ও আত্মীয়-স্বজন।

সেনাবাহিনীর কিছুসংখ্যক বিপদগামী সদস্য সপরিবারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর গোটা বিশ্বে নেমে আসে তীব্র শোকের ছায়া এবং ছড়িয়ে পড়ে ঘৃণার বিষবাষ্প। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর নোবেল জয়ী পশ্চিম জার্মানীর নেতা উইলি ব্রানডিট বলেন, মুজিবকে হত্যার পর বাঙালিদের আর বিশ্বাস করা যায় না। যে বাঙালি শেখ মুজিবকে হত্যা করতে পারে তারা যেকোন জঘন্য কাজ করতে পারে।