দিনাজপুরে টানা বর্ষণে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, দূর্ভোগে হাজারো মানুষ

টানা দু’দিনের অতিবৃষ্টিতে দিনাজপুরের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এতে করে পানির নিচে ডুবে গেছে শতশত একর জমির ফসল ও বসতবাড়ী। পানিতে ডুবে যাওয়া বাড়ীর পরিবারের লোকজন নদীর বাঁধে এসে আশ্রয় নিয়েছে। এতে চরম দূর্ভোগে পড়েছে জনজীবন।

গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত থেকে টানা এই বৃষ্টিপাতের শুরু হয়। এতে দিনাজপুরের বিভিন্ন জায়গায় ফসলী জমিসহ নিম্নাঞ্চল প্লাবিতর পাশাপাশি বেড়েছে নদ-নদীর পানি।

জেলার চিরিরবন্দর, বিরল, সেতাবগঞ্জ, খানসামা, ঘোড়াখাট ও সদর উপজেলার নদীগুলোতে পানি বেড়েছে তুলনা মূলক বেশি। দিনাজপুরের পূনর্ভবা, আত্রাই, ঢেপা, কাকড়া সহ ছোট বড় সব নদীর পানি বাড়তে শুরু করেছে।

যে কারনে দূর্ভোগে পড়েছে নদীর পার্শ¦বর্তী গ্রাম গুলো। নদীর তীরবর্তী পরিবার গুলো পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। তাই তারা উচু জায়গায় ও বাঁধের উপর আশ্রয় নিয়েছে। দিনাজপুরের ৬টি উপজেলা সহ সদর উপজেলার পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া পূনর্ভবা নদীর পাশে হঠাৎপাড়া, শান্তিপুর, গোবড়াপাড়া, বাঙ্গীবেচা ঘাট সহ বিভিন্ন এলাকা সম্পূর্ন ডুবে গেছে।

দিনাজপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র রেহাতুল ইসলাম খোকা জানালেন, নদীর পাশের গ্রাম গুলোতে ইতিমধ্যে শুকনো খাবারের ব্যাবস্থা করা হয়েছে। আর অতি বৃষ্টিতে শহরের জলাবদ্ধতা নিয়ন্ত্রন করতে খাল গুলো পুনরায় খনন করার কাজ শুরু হয়েছে। পুরোপুরি খনন শেষে হলে শহরের জলাবদ্ধতা থেকে মুক্তি পাবে এলাকার মানুষ।

 

গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় ২১৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে বলে জানিয়েছে দিনাজপুর আবহাওয়া অধিদপ্তরের কর্মকর্তা। তিনি আরো জানান, আগামী ২ দিন এই বৃষ্টিপাত হতে পারে।

ফখরুল হাসান পলাশ । দিনাজপুর প্রতিনিধি