সালমানের সেই ফাঁসির দড়ি সম্প্রতি ঘুরে বেড়াচ্ছে ফেসবুকে!

সালমান শাহর যে সিলিং ফ্যানে আত্মহত্যা করে ছিলেন সেই সিলিং ফ্যান ও ফাঁসির দড়ির ছবি সম্প্রতি ঘুরে বেড়াচ্ছে ফেসবুকে। সালমানের ‘সত্যের মৃত্যু নেই’ চলচ্চিত্রের মতো দীর্ঘ ২১ বছর পর আসল সত্যটা বেরিয়ে আসতে শুরু করছে বলে মনে করছেন তার ভক্ত ও অনুরাগীরা।

বাংলা চলচ্চিত্রে দ্যুতি ছাড়ানো তারকা ছিলেন প্রয়াত সালমান শাহ। চলচ্চিত্রের অনেক দৃশ্যে তিনি ফাঁসির আসামি সেজে ছিলেন। এমনকি জেলও খেটেছেন। সেখান থেকে মুক্তিও পেয়েছিলেন। কিন্তু নিয়তি এমন যে বাস্তব জীবনে ফাঁসির দড়ি ঠিকই গলায় পরতে হলো তাকে। সালমানের সেই সিলিং ফ্যান ও ফাঁসির দড়ির ছবি সম্প্রতি ঘুরে বেড়াচ্ছে ফেসবুকে। ছবিটি শেয়ার দিয়ে সালমান ভক্তরা নিজেদের প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন।

শুধু ফাঁসির দড়ির ছবি না মৃত্যুর পর দিন সালমান শাহর বাসা থেকে আরও যেসব আলামতের ছবি তোলা হয়েছিল সেসব ছবিও ভাইরাল হয়েছে। অন্যদিকে সালমান শাহর মা নীলা চৌধুরী মনে করেন তার ছেলেকে হত্যা করে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে দেয়া হয়। আর এজন্য তিনি দীর্ঘ ২১ বছর ধরে সন্তানের হত্যা মামলা চালিয়ে যাচ্ছেন।

উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর সকালে রাজধানীর নিউ ইস্কাটন গার্ডেন এলাকায় ভাড়া বাসায় পাওয়া যায় অভিনেতা সালমান শাহর লাশ। ওই ঘটনায় সালমানের বাবা রমনা থানায় অপমৃত্যুর মামলা করেন।