ফরিদপুরে শোক মাস উপলক্ষ্যে নির্মিত দুটি তোরণ ভাংচুর

ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার মাঝকান্দি ও বাগাট বাজার এলাকায় জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে নির্মাণ করা দুটি তোরণ ভাংচুর ও ব্যানার ছিড়ে ফেলেছে দূর্বৃত্তরা। এ তোরণ দুটি নির্মাণ করিয়েছিলেন ফরিদপুর জেলা পরিষদের সদস্য মির্জা আহসানউজ্জামান আজাউল। এঘটনায় স্থাণীয় বঙ্গবন্ধু প্রেমিদের মধ্যে অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছে।

ফরিদপুর জেলা পরিষদের সদস্য মির্জা আহসানউজ্জামান আজাউল জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দুই শ্রমিক মাঝকান্দি এলাকায় জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে তোরণ নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ের কাজ সম্পন্ন করছিল। এসময় স্থাণীয় মো. মোশাররফ হোসেনের নেতৃত্বে তিন চারজন সেখানে উপস্থিত হয়ে তোরণে ব্যবহৃত ব্যানার ছিড়ে ফেলেন। তিনি জানান, ওই ব্যানারে বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শেখ রাসেলসহ ৭৫এ ১৫ আগষ্ট বঙ্গবন্ধুর পরিবারের নিহতদের ছবি ছিল। তিনি জানান এর আগে উপজেলার বাগাট বাজার এলাকায় নির্মাণ করা আরেকটি তোরণ কেবা কারা ভেঙ্গে ফেলে।

যদিও এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মো. মোশাররফ হোসেন মুশা। মুশা নিজেকে মধুখালী উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক দাবী করে বলেন, এলাকায় তোরণ নির্মাণ করা হবে আর স্থাণীয় আওয়ামীলীগের কেউ জানবেনা, সেটা ঠিকনা। ওই তোরণে কাজ করতে থাকা শ্রমিক মো. রিপন শেখ জানান, কাজ শেষ পর্যায়ে যখন নেমে আসছিলাম এসময় কয়েকজন লোক এসে গালাগাল করেন এবং এক পর্যায়ে তারা তোরণে লাগানো ব্যানার টেনে ছিড়ে ফেলেন।

এ ঘটনায় ক্ষুব্দ প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করেছেন স্থানীয়রা। ওই এলাকার মো. জাবেদ শেখ, আবু তাহের, রাশেদা পারভীন বলেন, কারো উপর ব্যাক্তিগত রাগ ক্ষোভ থাকতে পারে, কিন্তু বঙ্গবন্ধু বা তার পরিবার কারো ব্যাক্তিগত সম্পদ নয়। সুতারাং তাদের ছবি সম্বলিত ব্যানার ছেড়া অন্যায়। তারা এ ঘটনায় সুষ্ঠ তদন্ত দাবী করেন।

হারুন-অর-রশীদ । ফরিদপুর প্রতিনিধি