সিরাজদিখানে যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে নির্যাতন

সিরাজদিখানে যৌতুকের টাকা না পেয়ে গৃহবধূকে হাত-পা বেঁধে মারধরসহ নানাভাবে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। ওই গৃহবধূ সোমবার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি হয়েছে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গৃহবধূ বলেন, “যৌতুকের জন্য আমার স্বামী উজ্জ্বল মোল্লা শনিবার রাতে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করে।

লোকমুখে খবর শুনে পরের দিন সকালে আমার মা লুৎফা বেগমসহ স্থানীয়রা আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। গৃহবধূর স্বজনরা জানান, উপজেলার মধ্যপাড়া ইউনিয়নের মালপদিয়া গ্রামের মৃত মজিবর রহমানের মেয়ে ইয়াছসমিন আক্তারের (২৩) সঙ্গে একই ইউনিয়নের নয়াবাড়ি গ্রামের হাজী হামিদ মোল্লার ছেলে উজ্জ্বল মোল্লার (৩০) এর ৫ বছর আগে বিয়ে হয়।

বিয়ের পর থেকেই স্বামী, শ্বশুর, শাশুড়ি ও ননদ বিভিন্ন সময় ইয়াছমিনের ওপর যৌতুকের জন্য অমানুষিক নির্যাতন করতেন। নির্যাতনের ঘটনায় স্থানীয় চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে এলাকায় একাধিকবার সালিস হয়েছে। গত  শুক্রবার গৃহবধূ ইয়াছমিনের সকল স্বর্ণালংকার স্বামী উজ্জ্বল মোল্লা বিক্রি করে দেয়। তারপর বাবার বাড়ি থেকে আরো দেড়লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. দুলাল হোসন জানান, গৃহবধূর শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে তবে তেমন গুরুতর না।সিরাজদিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইয়ারদৌস হাসান জানান, এ ঘটনায় এখনো কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আব্দুল্লাহ আল মাসুদ । সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি