মুক্তির আগেই পাইরেসির শিকার হলো আলোচিত ‘রংবাজ’ ছবির ট্রেলার। আসছে ঈদেই মুক্তি পেতে যাচ্ছে আলোচিত এই ছবিটি। ছবিটির শুটিং-পরবর্তী কাজও সম্পন্ন হয়ে গেছে। এখন শুধু ট্রেলার নিয়ে প্রচারণায় নামার সময়।

আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রচারণায় নামার আগেই ইউটিউব ও ফেসবুকে ‘রংবাজ’-এর ট্রেলার ফাঁস হয়ে গেছে। আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রযোজনা সংস্থা থেকে এখনো ট্রেলার মুক্তি দেওয়া হয়নি। তবু ফেসবুক ও ইউটিউবে দেখা যাচ্ছে ছবিটির ট্রেলার। ধারণা করা হচ্ছে, যেহেতু ছবিটি নিয়ে সাধারণ মানুষের মনে দারুণ কৌতূহল, এরই সুযোগ নিয়েছে কেউ। ট্রেলারটি আনুষ্ঠানিক ভাবে মুক্তি দেওয়ার আগে কোনো ভাবে এর এক কপি চলে গেছে পাইরেসিবাজদের দখলে। এতে অবশ্য ছবিটির প্রচারণা বাড়তে পারে। তবে একই কায়দায় ছবিটিও পাইরেসির শিকার হতে পারে বলে আশঙ্কা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের।

৪ মিনিট ২৯ সেকেন্ড ব্যাপ্তির এই ট্রেলারটি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করেছে শাকিব ভক্তদের সৌজন্যে। ট্রেলারটিতে শাকিব ও বুবলিকে আগের সিনেমাগুলো থেকে একটু ভিন্নরূপে দেখা গেছে। নতুন হেয়ার স্টাইল, শরীরে ট্যাটু, পোশাকে নতুনত্ব আর গলায় একগোছা মালা। ঢাকাই ছবিতে একদম নতুন লুকে শাকিব হাজির হচ্ছেন ‘রংবাজ’-এর ভূমিকায়। যে ট্রেলারটি দেখা যাচ্ছে, তাতে কালার গ্রেডিং বা কারেকশন কিছুই হয়নি। কীভাবে তা ইউটিউব বা ফেসবুকে চলে এল, তা জানতে ছবির নির্মাতা আবদুল মান্নানের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয়েছে। তবে তাঁর মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

অভিনেত্রী বুবলি আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন, ট্রেলারের মতো ছবিটিও না পাইরেসির শিকার হয়, ‘এ নিয়ে সবাইকে বলতে বলতে ক্লান্ত। এমন হলে কীভাবে হবে? এত কষ্ট করে একটা ছবি বানানো হয়। সেখানে যদি কেউ চোরের মতো পাইরেসি করা নিয়ে ব্যস্ত থাকে, তাহলে কীভাবে হবে? অন্য কোনো দেশে এমন হয় না। কারণ, তাঁরা দেশকে ভালোবাসে। দেশের সংস্কৃতি ভালোবাসে। কিন্তু এ দেশের মানুষের কারও কারও দেশপ্রেমের অভাব।’ সম্পাদনা প্যানেল থেকে এ ধরনের পাইরেসি হচ্ছে বলে মনে করেন বুবলি। এর আগে ‘অহংকার’ ছবির গানও মুক্তির আগে ফাঁস হয়ে গিয়েছিল।

ছবিটি নিয়ে নানা সময়ই আলোচনার জন্ম হয়েছে। ছবিটি স্বপ্ন নিয়ে শুরু করেছিলেন ‘বসগিরি’ খ্যাত তরুণ নির্মাতা শামীম আহমেদ রনি। কিন্তু পরিচালক সমিতি ছবি নির্মাণের মাঝখানেই তাঁকে নিষিদ্ধ করলে ছবিটির দায়িত্ব পান আবদুল মান্নান। রূপরঙ এবং শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মসের ব্যানারে নির্মিত এই ছবিতে শাকিব-বুবলি ছাড়াও আছেন অমিত হাসান এবং আরও অনেকেই।

https://www.youtube.com/watch?v=lwQ-LViygto