ফেসবুকে রুবির নতুন স্ট্যাটাস দেখে কৌতুহলের ঝড় উঠেছে। আজ মঙ্গলবার একটি স্ট্যাটাসে সামিরার বাবা শফিকুল হক হীরার উদ্দেশ্যে কয়েকটি প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন রুবি। তারপর থেকেই আবার সরগরম হয়ে উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়া।

গত সোমবার জনপ্রিয় চিত্রনায়ক সালমান শাহর হত্যা মামলার অন্যতম আসামি রুবির একটি ভিডিও প্রকাশের মাধ্যমে আলোচনার ঝড় ওঠে সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেই ভিডিওতে সালমান হত্যাকাণ্ডের জন্য নিজের স্বামীর পাশাপাশি সালমানের শুশুর বাড়ির লোকজনকেও দায়ী করেছেন তিনি। একই সঙ্গে ভিডিওতে রুবি নিজেকে সালমান হত্যার একমাত্র জীবিত প্রমাণ দাবি করে এ হত্যার সাক্ষী দেওয়ারও ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

এমন অভিযোগ উঠার পর গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রুবির বক্তব্যকে মোটেই পাত্তা দিচ্ছেন না বলে জানান সালমান শাহর শ্বশুর সাবেক ক্রিকেটার শফিকুল হক হীরা। তিনি রুবিকে উন্মাদ আখ্যা দিয়েছেন। পাশাপাশি সালমানের মা নীলা চৌধুরী তাকে টাকা দিয়ে এই কাজ করাচ্ছেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

হীরার এমন বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে রুবি আজ ফেসবুকে নতুন স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তিনি স্ট্যাটাসে বলেছেন – ‘সামিরার (সালমানের স্ত্রী) পরিবারকে বলো শরীর ও মনের দিক থেকে আমি অনেক ভালো আছি। তারা কীভাবে প্রমাণ করবে যে আমি মানসিক ভাবে অসুস্থ?’ এরপর রুবি বাংলায় লেখেন, ‘সামিরার বাবা শফিকুল হক হীরা কী করে আমার সমন্ধে এতো কিছু জানে? আমি তো উনাকে দেখিনি ১৯৯৭ সালের পরে। আমাকে নিয়ে এতো খবর তিনি কী করে জানেন? কার কাছ থেকে তিনি এতো খবর পান। মাথা খারাপ মানুষ নিউইয়র্কে হোটেল ভাড়া নিতে পারে না। আমি হোটেলে তিনদিন ধরে আছি। একা। একমাত্র আল্লাহ তায়ালার ওপর ভরসা করে। পঁয়সা আমার আছে। কেউ জানে না। নীলা চৌধুরী দেয় নাই। নীলা ভাবিকে আমি শেষবার দেখছি ১৯৯৫ সালে। যেদিন সালমান শাহ মানে ইমন মারা যায়।’

ফেসবুকে রুবির নতুন স্ট্যাটাস, সোশ্যাল মিডিয়ায় কৌতুহলের ঝড়
ফেসবুকে রুবির নতুন স্ট্যাটাস

রুবি আবারও প্রশ্ন তোলেন, ‘আমাদের সবাই সালমান ও সামিরা বাসায় যাওয়ার (সালমানের মৃত্যুর দিন) পর সামিরা কেন আমাকে না জানিয়ে আমার ছেলে ইহসান জামিল ভিকিকে একটা কাপড়ের পুটলি দিয়েছিল ওদের বাসা থেকে আমাদের ছাদে ফেলার জন্য? কি ছিল ওই কাপড়ের পুটলিতে? কেন আবুলের (কাজের লোক) কাছে সালমান শাহর সুইসাইড নোট ছিল?’

প্রসঙ্গত, সালমান শাহ হত্যা মামলার যে ১১ জন তালিকায় নাম রয়েছে রাবেয়া সুলতানা রুবি ওরফে রুবির। সোমবারের পর মঙ্গলবার তার এই ফেসবুক স্ট্যাটাস নিয়ে অনেকের মনে আবারও নতুন কৌতুহলের জন্ম হয়েছে।