পুলিশের হেফাজতে সিরাজদিখানের সাবেক ইউপি সদস্যের রহস্যজনক মৃত্যু

সিরাজদিখান উপজেলার মালখানগর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ড সাবেক সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু শেখ কক্সবাজার পুলিশ হেফাজতে রবিবার রাত ১১ টার দিকে মারা গিয়েছে। সে মালখানগর গ্রামের মৃত বাদশা শেখের ছেলে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০ টায় মালখানগর ষোলআনি মাঠে যানাজা শেষে গোড়াপীপাড়া কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে।

মঞ্জু শেখের ছেলে সোহাগ, বড় মেয়ে তানজুম ও পুত্রবধূ নোভা জানান, তার বাবা একটি মাদক মামলায হাজিরা দিতে কক্সবাজার যায়। গত ২৯ জুলাই রাতে কক্সবাজার থেকে ফোন আসে মঞ্জু হাসপাতালে আছে, চিকিৎসার জন্য টাকা পাঠাতে। পরে মঞ্জুকে দিয়ে ফোন করা হয় ১ লাখ ২০ হাজার টাকা পাঠালে তাকে ছেড়ে দিবে। সে কক্সবাজার থানায় আছে। পরিবারের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করে বিকাশ নাম্বার ০১৭৭৯৭০৯০৮০ এ ১৬ বারে ১লাখ ২০ হাজার টাকা মালখানগর কাদিরের দোকান থেকে পাঠানো হয়। স্বজনদের দাবী তার পরও তাকে রোববার ৬ আগষ্ট পুলিশ তাকে মেরে ফেলেছে। স্বজনরা আরো জানায় প্রথমে হাসপাতাল থেকে যারা মঞ্জু শেখের নাম্বার থেকে ফোন দিয়েছে, তারা ডাক্তার বা নার্স না, তারা পুলিশ। পরিবারের লোকজন মুন্সীগঞ্জ থেকে কক্সবাজার যাওয়ার পথে মঞ্জু শেখ ফোন দেয় তোমরা এসো না আমি থানায় আছি তোমরা টাকা পাঠাও আমাকে ছেড়ে দিবে পুলিশ।

এলাকাবাসী অনেকে জানায় এলাকায় মানুষের সাথে সে ভাল ব্যাবহার করত কিন্তু সে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত ছিল। এ বিষয়ে গত ৭ আগষ্ট কক্সবাজার জেলখানা থেকে একটি লিখিত বার্তা সিরাজদিখান থানায় আসে লাশ স্বজনরা নিবে কি নিবে না জানানোর জন্য। সিরাজদিখান থানার ওসি (প্রশাসন) মো. ইয়ারদৌস হাসান জানান, মঞ্জু শেখ একজন মাদক ব্যবসায়ী তার বিরুদ্ধে ৫ টি মামলার ওয়ারেন্ট রয়েছে।

আব্দুল্লাহ আল মাসুদ । মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি