নগ্ন অবস্থায় শিক্ষক-ছাত্রী আটক, শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে কুকর্মে লিপ্ত অবস্থায় হাতেনাতে ধরা পড়েছেন রৌমারী ডিগ্রী কলেজের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান ফেরদৌস।

শনিবার দুপুরে নিজ বাড়িতে এলাকাবাসীর হাতে নগ্ন অবস্থায় আটক হন ওই শিক্ষক। জানা যায়, স্ত্রীর অনুস্থিতিতে জান্নাতুল ফেরদৌস মোসুমী নামের মেয়েটিকে তিনি বাড়িতে ডাকেন। মেয়েটির বাড়ি রৌমারী উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়নের চাকতাবাড়ী গ্রামে। ভাওয়াল কলেজে ইংরেজি বিভাগে মাস্টার্স করছেন তিনি। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, শিক্ষক ফেরদৌস-এর বাড়িতে মেয়েটি ঢুকলে আমাদের সন্দেহ হয়। আমরা ঘটনাটি জানার জন্য তার বাড়িতে ঢুকলে ঘরের ভিতর দুজনকেই নগ্ন অবস্থায় পাই। এসময় তিনি হাতুর নিয়ে একজনকে আঘাত করে ঘরের দরজা লাগিয়ে দেন এবং পিছনের দরজা দিয়ে মেয়েটিকে বের করে দেন। আমরা মেয়েটিকে ধরে তার ঘরে নিয়ে আসি। পরে ওই শিক্ষকের বাড়িতেই দুজনকে দঁড়ি দিয়ে বেঁধে রাখা হয়। ঘটনায় এলাকাবাসী তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে। এক পর্যায়ে পুলিশ এসে দুজনকেই থানায় নিয়ে যায়।

উল্লেখ্য, ওই শিক্ষক এর আগে ২০০৭ সালে ছাত্রীর সাথে কু-কর্ম করতে গিয়ে ধরা পড়েন। কলেজ শিক্ষকের অপসারণ দাবীতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ। এদিকে শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান ফেরদৌস ওরফে কুদ্দুসের অপসারণের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন ওই কলেজের শিক্ষার্থীরা। রোববার দুপুরে রৌমারী ডিগ্রি কলেজ ক্যাম্পাস থেকে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করে উপজেলা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা চত্বরে এসে মিলিত হয়। এসময় বক্তব্য রাখেন শিক্ষার্থী ইলা, বিনা, সাকিরা, লিমা, সারমিন প্রমুখ। কলেজের শিক্ষার্থীদের সাথে এই বিক্ষোভ কর্মসূচিতে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের অনেক মানুষ অংশ নেন। শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান ফেরদৌস ওরফে কুদ্দুসের এমন আপত্তিকর ঘটনা প্রায়ই ঘটায় রৌমারী ডিগ্রী কলেজের সুনাম অক্ষুণ্ণ রাখতে এই শিক্ষককে কলেজ থেকে অপসারণের দাবীতে আন্দোলনে নামে কলেজের শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসী।

রৌমারী ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সামিউল ইসলাম জীবন জানান, বর্তমান কলেজের পরিস্থিতি শান্ত করার লক্ষে তাকে সাময়িকভাবে কলেজ থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সোমবার ম্যানেজিং কমিটির সভা আহ্বান করা হয়েছে। সভায় চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

মোঃ মনিরুজ্জামান । কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি