সিরাজদিখানে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে হত্যার চেষ্টা

সিরাজদিখান উপজেলার স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহসভাপতি মোঃ জামাল হাওলাদার রতনকে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অবশ্য পুলিশ বলছে দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি হচ্ছে এমন খবর পেয়ে সেখানে গেলে কাউকে পাওয়া যায়নি। আহত স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা বর্তমানে ঢাকা মিডফোর্ড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

উপজেলার জৈনসার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ আবুল খায়ের বেপারী জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে জমি জমা নিয়ে বিরোধের কারনে ভাটিমভোগ গ্রামের মতিন হাওলাদারের ছেলে বিপ্লব হাওরাদারসহ ১০/১২জন হত্যার উদ্দেশ্যে এই হামলা চালায়। বিপ্লব এলাকায় উশৃঙ্খল কর্মকান্ড করে বেরাচ্ছে। আমরা এর আইন মোতাবেক বিচার চাই। জামাল হাওলাদার রতনের পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করে বলেন, আমাদের বাড়িতে টিউবওয়েল বসানোর ফলে ভাটিমভোগ গ্রামের মতিন হাওলাদার খোকার ছেলে বিপ্লব হাওলাদার ও তার ভাই পিপুল হাওলাদার রাতের অন্ধকারে পূর্বশত্রুতার জের ধরে টিউবওয়েলের পাইপ কেটে দেয়। গত শুক্রবার বিকালে পাইপ কাটার কথা জিজ্ঞেসা করলে ৬-৭জন বাড়ির ভিতরে এসে হামলা চালায়। হামলার একপর্যায়ে ওই সন্ত্রাসীরা জামাল হাওলাদার রতন কে লক্ষ্য করে লোহার রড, ইট পাথরছড়–তে থাকে তখন রতন ঝাঁপ দিয়ে ঘড়ে ঢোকে নিজেকে রক্ষা করে।

পরে স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হয়। আহত স্বেচ্ছাসেবকলীগ সহ-সভাপতি জামাল হাওলাদার রতনের স্ত্রী সালমা আক্তার কনা,আঃ মুকিব সেখ ও মোঃ জাহাঙ্গির জমাদ্দার গত রাতে ঢাকা মিডফোর্ড হাসপাতাল থেকে মুঠোফোনে সাংবাদিকদের জানান, জামাল হাওলাদার রতন এখন শঙ্কামুক্ত। সিরাজদিখান থানার ওসি মোঃ ইয়ারদৌস হাসান জানান, থানায় লিখিত অভিযোগ হয়েছে। মারামারির ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ শনিবার সেখানে গেলে কাউকেই পায়নি। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আব্দুল্লাহ আল মাসুদ । মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি