আ.লীগ নেতার ছেলের হাতে ধর্ষন হল স্বামী পরিত্যক্তা নারী

রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় বিয়ের প্রলোভলে এক স্বামী পরিত্যক্ত নারীকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। সেই সঙ্গে ধর্ষণের ভিডিওচিত্র ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন নির্যাতিত ওই নারী। এ ঘটনায় শুক্রবার ভোরে আল মামুন (২৪) নামের অভিযুক্ত আওয়ামী লীগ নেতার ছেলেকে গ্রেফতার করেছে পুঠিয়া থানা পুলিশ।

গ্রেফতার আল মামুন নাটোর নবাব সিরাজউদ্দৌলা সরকারি কলেজের ডিগ্রি প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি উপজেলার জিউপাড়া ইউনিয়নের সৈয়দপুর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত সভাপতি সমশের আলীর ছেলে। গত ২ আগস্ট রাতে ঘটনার শিকার স্বামী পরিত্যক্ত ওই নারী (২২) আল মামুনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন। এ ঘটনার পর থেকে আত্মগোপন করেন আল মামুন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ধোপাপাড়া এলাকার জনৈক ব্যক্তির স্বামী পরিত্যক্ত নারী সৈয়দপুরে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতেন। কর্মস্থলে যাওয়া আসার পথে ওই নারীর সঙ্গে আল মামুনের পরিচয় হয়। পরিচয়ের কিছুদিন পর আল মামুন ওই নারীকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। এতে রাজি হওয়ায় গত ১৫ মে বিকেলে ওই নারীকে রাজশাহী নগরীতে নেন মামুন।

সেখানে কাজি নেই অজুহাতে ওদিন রাতে নগরীর শহীদ এএইচএম কামরুজ্জামান কেন্দ্রীয় উদ্যান ও চিড়িয়াখানা এলাকার এক আত্মীয়ের বাসায় ওঠেন। সেখানেই ওই নারীকে ধর্ষণ করে মোবাইলে গোপন ভিডিও ধারণ করেন মামুন। পাশাপাশি বিয়ে না করে ওই নারীকে ফেলে আসেন মামুন। ওই নারী তাকে বিয়ের জন্য চাপ দেয়ায় গত ২০ জুলাই ইন্টারনেটে ধর্ষণের ভিডিও ছড়িয়ে দেন ধর্ষক।

পুঠিয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সায়েদুর রহমান ভূইয়া জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ওই যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে শুক্রবার দুপুরের পর ওই নারীর দায়ের করা মামলায় আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।