লীলাবতির আইসিইউতে আছেন কিংবদন্তি অভিনেতা দিলীপ কুমার। শারীরিক অসুস্থতার কারণে অভিনয় জগতের কিংবদন্তি অভিনেতা দিলীপ কুমার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাকে মুম্বাইয়ের লীলাবতি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তাকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে।

হাসপাতালে ভর্তির পর এখনো তার স্বাস্থ্যের ব্যাপারে কিছুই পরিষ্কার জানা যায়নি। হাসপাতাল সূত্রে খবর, গত বুধবার দুপুরের দিকে অভিনেতা দিলীপ কুমারকে ডিহাইড্রেশন জাতীয় রোগের কারণে ভর্তি করা হয়েছে লীলাবতি হাসপাতালে। তাকে নানা রকম শারীরিক পরীক্ষা করা হবে। সেই সকল পরীক্ষার ফলের উপর ভিত্তি করেই পরবর্তী ধাপের চিকিৎসা করা হবে। হাসপাতালের সিইও রবিশঙ্কর অবশ্য বলেন, “ডিহাইড্রেশনের সমস্যা নিয়ে ভর্তি হলেও আপাতত স্থিতিশীল দিলীপ কুমার। তবে শারীরিক ভাবে বেশ দুর্বল তিনি।” আপাতত কিছু দিন তাঁকে হাসপাতালেই থাকতে হবে বলে জানানো হয়েছে।

৯৩ বছর বয়সী এই তারকা গত কয়েক বছরে বেশ কয়েকবার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। গত ডিসেম্বর মাসেই জ্বর এবং ডান পা ফোলার সমস্যা নিয়ে এই লীলাবতি হাসপাতালেই ভর্তি ছিলেন বেশ কিছুদিন। দিলীপের স্ত্রী সায়রা বানু বলেছেন, ‘আমি তাকে নিয়মিত চেক-আপ করানোর পরিকল্পনা করছিলাম। কিন্তু তার পা ফুলে যাওয়ার ঘটনায় আমি সতর্ক হয়ে যাই। তিনি ঠাণ্ডা এবং কাশির কষ্টেও ভুগছিলেন। দিলীপ সাবের স্বাস্থ্যের কোনো সমস্যার বিষয়কেই আমি অবহেলা করি না।’ আগামী ১১ ডিসেম্বর ৯৪ বছরে পা রাখবেন এই বর্ষীয়ান অভিনেতা। তার স্ত্রী বলেন, ‘চিকিৎসকরা দিলীপ কুমারের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছেন এবং পর্যবেক্ষণে রেখেছেন। আমি আশাবাদী গুরুতর কিছু হয়নি। ইনশাল্লাহ আগামী রোববার তাকে বাড়ি নিয়ে যেতে পারব।’

উল্লেখ্য, দিলীপ কুমার একজন মুসলিম অভিনেতা এবং তার আসল নাম ইউসুফ খান। তিনি ‘আন’, ‘দাগ’, ‘দেবদাস’, ‘মধুমতি’, ‘মুঘলে আজম’, ‘রাম অউর শ্যাম’সহ বিখ্যাত সব চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে দিলীপ কুমার নামে খ্যাত হন। অভিনয়ে অবদানের জন্য ১৯৯১ সালে পদ্মভূষণ সম্মানে ভূষিত হন তিনি। ১৯৯৮ সালে চলচ্চিত্র জগত থেকে সরে আসেন। তার সর্বশেষ চলচ্চিত্রের নাম ‘কিলা’। তিনি ১৯৯৮ সালে দাদাসাহেব ফালকে এবং ২০১৫ সালে পদ্মবিভূষণ সম্মাননা লাভ করেন।