টেকনাফে মাদক বিরোধী অভিযানে ইউপি মেম্বারের স্ত্রীসহ আটক ১১

টেকনাফে পুলিশ মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে ইউপি মেম্বারের স্ত্রীসহ ১১জনকে আটক করেছেন। এসময় পুলিশ ২৩হাজার ৯শ পিচ ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করেন। আটকৃতদের সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা রুজু করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, বুধবার ভোর রাতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চাইলাউ মারমার নেতৃত্বে টেকনাফ থানা পুলিশ ও কক্সবাজার গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে এদেরকে আটক করেন। তাদের মধ্যে হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী শামসুল আলম বাবুলের স্ত্রী ছালেহা বেগমও রয়েছেন। অপরাপর আটককৃতরা হলেন, হ্নীলা পূর্ব সিকদারপাড়া এলাকার মৃত কালা মিয়ার পুত্র শামসুদ্দিন (৪৮), হোয়াইক্যং পূর্ব নাছরপাড়া এলাকার মৃত হাজী সোমায়মানের পুত্র নবী হোছাইন (৩৭), মো: সিরাজ (৪৫), দক্ষিণ কাঞ্জরপাড়া এলাকার আবুল হোসনের পুত্র আবছার উদ্দিন (২০), নুর হোসন (৪৮), কাটাখালীর এলাকার নাজির হোসনের পুত্র খাইরুল বশর (৩৭), হ্নীলা পশ্চিম পানখালী এলাকার মৃত হাজী সোনালীর পুত্র আলী আহমদ (৩০), ইসছুফ আলীর পুত্র শাসসুল আলম (৩৮), মো: হোসনের পুত্র হাবিবুল্লাহ (৩৭), আবু ছিদ্দিকের পুত্র ইরফান উদ্দিন (৩০)।

আটককৃতদের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে মাদক আইনে ও পুলিশের উপর হামলা সংক্রান্ত পৃথক ৭টি মামলা রুজু করেছেন। টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মো: আশরাফুজ্জামান সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করেন।