অনুমতি ছাড়া বাংলাদেশের নাটকে পরমব্রত, থানায় গাজী রাকায়েতের অভিযোগ

অনুমতি ছাড়া বাংলাদেশের নাটকে কাজ করায় বর্তমান ফেলুদা চরিত্র, কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেতা পরমব্রত চ্যাটার্জীর বিরুদ্ধে বনানী থানায় অভিযোগ করেছেন টেলিভিশন নাটকের বিভিন্ন সংগঠনের সমন্বয়ে গঠিত এফটিপিওর সদস্য সচিব নির্মাতা-অভিনেতা গাজী রাকায়েত। তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন শিল্পী সংঘের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবীব নাসিম।

গত কয়েকদিন যাবৎ ঢাকায় বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়াতে দেখা গিয়েছে কলকাতার অভিনেতা পরমব্রতকে। কারণ ঢাকায় নির্মিত হচ্ছে সত্যজিৎ রায়ের ‘ফেলুদা’ সিরিজের গল্প থেকে নাটক। ঢাকায় বা এদেশের টেলিভিশনের জন্য নির্মিত হলেও ফেলুদা চরিত্রে দেখা যাবে কলকাতার এই জনপ্রিয় অভিনেতাকেই।

কিন্তু নিয়ম ভেঙে বাংলাদেশে কাজ করার অভিযোগ এনে আজ বুধবার দুপুরে ডিক্টেরস গিল্ড-এর সভাপতি গাজী রাকায়েত বনানী থানায় অভিযোগ করেছেন। দায়ের করা ডায়েরিতে  প্রথম আলো পত্রিকায় প্রকাশিত পরমব্রত অভিনীত একটি বিশেষ নাটকের সংবাদকে রেফারেন্স হিসেবে তুলে ধরে তিনি উল্লেখ করেন, ভারতীয় অভিনেতা পরমব্রত সরকারি অনুমোদন এবং দেশের বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে কোনো রকম আলোচনা ছাড়াই বাংলাদেশের টিভি নাটকে নিয়মিত কাজ করে চলছেন, যা মেনে নেয়া যায় না। অভিযোগটি গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বনানী থানার এসআই সুলতানা আক্তার।

এছাড়াও ধারণা করা হচ্ছে নাটকটির পরিচালকও তিনি নিজেই এবং সেটি তিনি গোপন করেছেন। এই নাটকে টেকনিক্যাল কলাকুশলীসহ আরও বেশ কয়েকজন শিল্পী কলকাতার। সন্দীপ রায়ের কাছ থেকে ফেলুদা সিরিজের সব কটি গল্পের টিভিস্বত্ব কিনে নিয়েছে বাংলাদেশি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ক্যান্ডি প্রোডাকশন ও টম ক্রিয়েশন। তারপর থেকেই শুরু হয়েছে নির্মাণ কাজ।

তবে অনেকেই মনে করছেন একজন বিদেশি শিল্পীর নামে থানায় অভিযোগ করা মানে তাকে হেয় করা। হীনমন্যতার পরিচয় দেয়া।