সিরাজগঞ্জে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা!

সিরাজগঞ্জের কামারখন্দে বিবদমান জমির কাঁঠাল পাড়া নিয়ে দুই ভাইয়ের সংঘর্ষে মমতা খাতুন (৫৫) নামে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এসময় সিরাজুল ইসলাম ও তার ছেলে মাহমুদুল হোসেন গুরুতর আহত হয়েছে। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। মঙ্গলবার বিকেলে কামারখন্দ উপজেলার বাজার ভদ্রঘাট ইউনিয়নের পূর্ব খানপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মমতা খাতুন বাজার ভদ্রঘাট ইউনিয়নের পূর্ব খানপাড়া এলাকার সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী। আহতেরা হলেন, সিরাজুল ইসলাম ও তার ছেলে মাহমুদুল হোসেন (৩২)। নিহত মমতা খাতুনের ভাই আব্দুর রশিদ ও প্রফেসর লোকমান হোসেনের বরাত দিয়ে স্থানীয় ভদ্রঘাট ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলীম জানান, একটি বিবাদমান জমি নিয়ে মৃত ফজল আলীর ছেলে সিরাজুল ইসলাম ও তার ছোট ভাই দুলাল হোসেনের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবত দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে বেশ কয়েকবার দরবার শালিস করেও মিমাংসা করতে পারেননি।

মঙ্গলবার বিকেলে ওই বিতর্কিত জমির কাঁঠাল গাছের একটি কাঠাল সিরাজুল ইসলাম পাড়তে যায়। এ সময় তার ছোট ভাই দুলাল হোসেন বাধা দিলে তাদের মধ্যে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। এক পর্যায়ে সংঘর্ষে দুই পরিবারের সদস্যরাও জড়িয়ে পড়েন। এমন সময় মমতা খাতুন ও তার ছেলে মাহমুদুল হোসেন ঘটনাস্থলে এলে দুলাল হোসেনের ছেলে হামজা ও হাবিবুল্লাহ তাদেরকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে গুরুতর জখম করে।

গুরুতর আহত মমতাকে উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা বিরাজ করছে। কামারখন্দ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাসুদেব সিনহা এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এ ব্যাপারে কামারখন্দ থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।