সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন চান সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, শুধু বিএনপিই নয় সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরাও চান সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন। তিনি বলেন, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা দেশকে ভালোবাসেন। তাই সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে দেশে গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে ভোটকেন্দ্রে সেনাবাহিনী মোতায়েনের পরামর্শ দিয়েছেন।

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর শিশু কল্যাণ পরিষদে আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় তিনি এ কথা বলেন। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লা বুলুর মুক্তির দাবিতে এ সভার আয়োজন করে বরকতউল্লা বুলু মুক্তি পরিষদ নামের একটি সংগঠন।

মির্জা ফখরুল বলেন, এ নির্বাচন কমিশন সম্পর্কে আমাদের বক্তব্য স্পষ্ট। এ কমিশন সরকারের নীলনকশা বাস্তবায়নে কাজ করছে। সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির মতো আর কোনো নির্বাচন এ দেশে হতে দেয়া হবে না। এ বিষয়ে স্পষ্ট ধারণা রাখুন।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের চামড়া খুব মোটা। এরা হিটলারকে অনুসরণ করে। নেতারা শিয়ালের মতো একজন যা বলে সবাই একই কথা বলে। নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, নিজেদের শক্তিতে দাঁড়ানোর কোনো বিকল্প নেই। ঘরের মধ্যে প্রতিবাদ করলে হবে না। রাজপথে নামতে হবে।

নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে হবে। আওয়ামী লীগকে সরানো ছাড়া কোনো বিকল্প নেই। সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ প্রমুখ।