সেন্টমার্টিনে স্ত্রীকে ভাঙ্গা গ্ল্যাস দিয়ে নির্মমভাবে স্বামীর অত্যাচার

সেন্টমার্টিন দ্বীপের নরপশু মোহাং আয়াছের অত্যাচারের শিকার স্ত্রী চোফাইরা বেগম, উপজেলা প্রশাসনের কাছে মোহাং আয়াছের সঠিক বিচার কামনা করছে টেকনাফ দ্বীপবাসী।

সেন্টমার্টিন দ্বীপের নরপশু মোহাং আয়াছের অত্যাচারের শিকার হল তার স্ত্রী চোফাইরা বেগম। মোহাং আয়াছের পিতার নাম ফজল করিম আনিক্কা। ঘটনাটি ঘটে ২০ জুলাই ২০১৭ ইং সকাল ৯ টার সময়। জানা যায়, মোং আয়াছের সাথে চোফাইরা বেগমের ২/৩ বছর আগে আনুষ্ঠানিকভাবে বিবাহ হয়। পরে কিছুদিন শেষে স্বামী অযথা জ্বালাপোড়ন শুরু করলে সে বাবার বাড়ী চলে আসে। পরবর্তীতে স্বামী আর জ্বালাপোড়ন করবেনা বলে সবার হাতে পায়ে ধরে আবার সংসার শুরু করার জন্য চোফাইরা বেগমকে নিয়ে আসে। আনার পর ৫নং ওয়ার্ডে অবস্থিত আবাসিক হোটেল সি টি বির ১০৬ নং রুমে কয়েকদিন রেখে পরে ভাঙ্গা গ্ল্যাস দিয়ে নির্মমভাবে মেরে ফেলার জন্য আঘাত  করে। এক পর্যায়ে ব্যর্থ হয়ে কৌশলে পালিয়ে যায় সে।

 

এখন পর্যন্ত সে পলাতক রয়েছে। এ ব্যাপারে স্থানীয় মেম্বার আবু বক্কর বলেন, ঘটনাটি সম্পূর্ণ সত্য। তিনি বলেন, মেয়েটিকে তার ঘাতক স্বামী মেরে ফেলতে চাইলেও ভাগ্যক্রমে আল্লাহ বাচিয়েছে। তবে স্বামী পলাতক রয়েছে।

চোফাইরা বেগম বর্তমানে কক্সবাজারের ফুয়াদ আল খতীব হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। অবশেষে দ্বীপবাসী তথা নিরীহ চোফাইরা বেগমের পরিবার টেকনাফ উপজেলা প্রশাসনের কাছে মোং আয়াছের সঠিক বিচার কামনা করেন।